ঢাকা, বাংলাদেশ

সোমবার, আশ্বিন ১০ ১৪২৯, ২৬ সেপ্টেম্বর ২০২২

English

বৃত্তের বাইরে

‘উঠান বৈঠকের মাধ্যমে নারীদের সচেতন করতে হবে’

উইমেনআই২৪ প্রতিবেদক

প্রকাশিত: ১৬:০৭, ১৩ সেপ্টেম্বর ২০২২; আপডেট: ২০:৪৬, ১৩ সেপ্টেম্বর ২০২২

‘উঠান বৈঠকের মাধ্যমে নারীদের সচেতন করতে হবে’

বক্তব্য রাখছেন স্পিকার শিরীন শারমিন...

নারীবাদি সংগঠন মহিলা পরিষদের আয়োজনে বাংলাদেশের জাতীয় উন্নয়ন প্রক্রিয়ায় নারী সংসদ সদস্যদের ভূমিকা বিষয়ক মতবিনিময় সভা অনুষ্ঠিত হয়েছে।

মঙ্গলবার (১৩ সেপ্টেম্বর) সকাল সাড়ে ১১টায় পার্লামেন্ট মের্ম্বাস ক্লাব অডিটরিয়ামে (২ নম্বর এল-ডি হল) নারী সংসদ সদস্যদের সঙ্গে এ সভা অনুষ্ঠিত হয়। সংগঠনটির সভাপতি ডা. ফওজিয়া মোসলেমের সভাপতিত্বে এতে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন স্পিকার স্পীকার ড. শিরীন শারমিন চৌধুরী এমপি। বিশেষ অতিথি হিসেব উপস্থিত ছিলেন মহিলা ও শিশু বিষয়ক মন্ত্রণালয় সম্পর্কিত সংসদীয় স্থায়ী কমিটির সভাপতি মেহের আফরোজ চুমকি এমপি। উপস্থিত সাংসদদের মধ্যে বক্তব্য রাখেন জাকিয়া পারভীন খানম, সৈয়দা রুবিনা আক্তার, অ্যাড. জাকিয়া তাবাসসুম, লুৎফুনন্নেছা খান, শামসুন্নাহার, রওশন জাহান সাথী।

সভার শুরুতে প্রয়াত মুক্তিযুদ্ধের অন্যতম সংগঠক, বিশিষ্ট রাজনৈতিক ব্যক্তিত্ব, সংসদ উপনেতা সৈয়দা সাজেদা চৌধুরীর প্রয়াণে শোকপ্রস্তাব পাঠ করেন বাংলাদেশ মহিলা পরিষদের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক অ্যাড. মাসুদা রেহানা বেগম। 

লিখিত বক্তব্যে বলা হয়, স্বাধীনতার ৫২ বছরে এসে বর্তমান সরকারের নানামুখী ইতিবাচক পদক্ষেপ গ্রহণের ফলে শান্তিমিশন, সেনাবাহিনী, পুলিশবাহিনী, বিচারবিভাগ, কূটনৈতিক মিশন, প্রশাসনসহ সকল ক্ষেত্রে সিদ্ধান্ত গ্রহণ পর্যায়ে নারীর অধিক সংখ্যক কার্যকর উপস্থিতি দৃশ্যমান হয়েছে। রাজনৈতিক ক্ষমতায়নের ক্ষেত্রে দক্ষিণ এশিয়ার মধ্যে বাংলাদেশের অবস্থান শীর্ষে হলেও দেশের সামগ্রিক  উন্নয়ন প্রক্রিয়ায়  নারীদের যুক্ত করার ক্ষেত্রে নানা চ্যালেঞ্জ রয়েছে। এসকল চ্যালেঞ্জ সমূহের মধ্যে রয়েছে নারীর প্রতি সহিংসতার মাত্রা বৃদ্ধি, সাম্প্রদায়িক সহিংসতা, নির্বাচনকালীন সহিংসতা, রাজনৈতিক সহিংসতা ও নারী বিদ্বেষী প্রচার প্রচারণা। চ্যালেঞ্জসমূহকে মোকাবেলা করে জাতীয় উন্নয়ন প্রক্রিয়ায় নারীদেও সম্পৃক্ত করে উন্নয়নকে স্থায়ী করার লক্ষ্যে কয়েকটি সুপারিশ উপস্থাপন করা হয় (সংযুক্ত-১- লিখিত বক্তব্য)।

প্রধান অতিথির বক্তব্যে স্পিকার ড. শিরীন শারমিন চৌধুরী বলেন, ‘১৯৯৬-২০০১ এর সময়কাল বাংলাদেশে নারী আন্দোলনের দাবি বাস্তবায়নের স্বর্ণযুগ ছিলো। সারা বাংলাদেশের নারীদের দাবি বাস্তবায়নে সরকার কাজ করছে। অনেক অর্জনও আছে। ১৯৭২ এর সংবিধান অনুসারে সকল শ্রেণির নারীদের রাজনৈতিক ক্ষমতায়নে অংশগ্রহণের সুযোগ সৃষ্টির দূরদর্শিতাসম্পন্ন সিদ্ধান্ত গৃহীত হয় জাতির পিতার নেতৃত্বে। তাদের সরাসরি নির্বাচনে কোন বাধা নেই। এজন্য নারীদের নিজেদের প্রস্তুত করতে হবে। এর পেছনে থাকা প্রতিবন্ধকতা নিয়ে আমাদের ভাবতে হবে, কাজ করতে হবে। যতক্ষণ রাজনীতিতে  নারীর ৩৩% প্রতিনিধিত্ব ও ৫০:৫০ অংশগ্রহণ না হচ্ছে ততক্ষণ সংরক্ষিত আসন রাখার কথা উল্লেখ করেন তিনি। কেবল বাংলাদেশেই নয় বিশ্বব্যাপী নারীরা রাজনৈতিক ক্ষমতায়নে পিছিয়ে আছে। জেন্ডার সমতা নিশ্চিতে, নারীর প্রতি সহিংসতা প্রতিরোধে সরকার কাজ করছে। নারীদের জীবনে থাকা প্রতিবন্ধকতা দূর করে আগামী প্রজন্মের জন্য সমতাপূর্ণ দেশ গঠনে গণতন্ত্র অপরিহার্য।’ আমরা এমন গণতন্ত্র চাই যা নারীর অগ্রগতির জন্য সহায়ক হবে। তিনি এসময় নারীর রাজনৈতিক ক্ষমতায়নের জন্য গণতান্ত্রিক প্রক্রিয়া নিশ্চিতের পাশাপাশি প্রাতিষ্ঠানিক কাঠামোর উপর জোর দেন।

সভায় বিশেষ অতিথির বক্তব্যে মহিলা ও শিশু বিষয়ক মন্ত্রণালয় সম্পর্কিত সংসদীয় স্থায়ী কমিটির সভাপতি মেহের আফরোজ চুমকি বলেন, ‘বর্তমানে নারীরা আগের চেয়ে অনেক এগিয়ে অনেক স্বাধীন। কাজের জন্য নারীদের দক্ষ হতে হবে।’ স্পিকারের কর্মদক্ষতার উল্লেখ করে তিনি বলেন, ‘দক্ষ যোগ্য নারীকে সঠিক জায়গায়  নির্বাচন করে তাদের কাজের সুযোগ দিলে নিজ যোগ্যতা প্রমাণ করতে পারবেন। সংসদে নারীর অংশগ্রহণ অবশ্যই বৃদ্ধি করতে হবে। এলক্ষ্যে সরকার প্রধান কাজ করে যাচ্ছেন প্রতিনিয়ত। সংসদে নারীদের তিনি ক্ষমতায়িত করেছেন। বর্তমানে ৫টি স্ট্যান্ডিং কমিটিতে নারীদের দায়িত্ব দেয়া হয়েছে।’ পাশাপাশি তিনি আরো বলেন, প্রতিটি ধর্ম অনুসারে প্রচলিত পারিবারিক আইন অনুযায়ীও নারীকে তার প্রাপ্য দেয়া হচ্ছে না, এটি আগে নিশ্চিত করতে হবে। তিনি সিডও সনদের পূর্ণ বাস্তবায়নের প্রয়োজনীয়তার উপর গুরুত্ব দেন। 

ডা. ফওজিয়া মোসলেম বলেন, ‘সমতা প্রতিষ্ঠার ক্ষেত্রে রাজনৈতিক ক্ষমতায়ন গুরুত্বপূর্ণ, এর সাথে নারী আন্দোলনের একটা সম্পর্ক আছে। নারী জনপ্রতিনিধিদের কাছে নারী সমাজের প্রত্যাশা রয়েছে। পুরুষ নির্মিত সমাজে নারীদের প্রত্যেককে সহযোগিতামূলক মনোভাব নিয়ে কাজ করার মনোভাব থাকতে হবে। সকল নারীর প্রতি সহিংসতাকে বন্ধ করতে  নারী জনপ্রতিনিধিদের কাজ করতে হবে। তিনি আরো বলেন নারীর সমস্যা সমাধানের জন্য প্রাতিষ্ঠানিক উদ্যোগ প্রয়োজন।’ তিনি প্রশ্ন রাখেন নারীদের অধিকারের বেলায় কেন ধর্মীয় আইনের প্রসঙ্গ উত্থাপন করা হয়? সংবিধানের ভিত্তিতে নারী-পুরুষের সমানাধিকার প্রতিষ্ঠায় প্রচলিত সকল আইনের  বাস্তবায়ন, নারীর উত্তরাধিকার আইন, অভিন্ন পারিবারিক আইন বাস্তবায়নে সরকারসহ সকল সংগঠনকে ঐক্যবদ্ধভাবে কাজ করার জন্য আলোচনার আহ্বান জানান। 

সভায় উপস্থিত সম্মানিত সংসদ সদস্যরা বলেন, ‘বর্তমান সরকার প্রধান নারীর মেধা প্রজ্ঞা কাজে লাগানোর জন্য পথ করে দিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী ও মাননীয় স্পীকার। কাউকে পিছনে ফেলে নয় সকলকে সাথে নিয়ে এগোতে হবে। নারীরা পেছনে পড়ে থাকলে রাষ্ট্রের সামগ্রিক উন্নয়ন নিশ্চিত হবেনা। কাজেই নারীদের উন্নয়নের মূলস্রোতধারায় নিয়ে আসার লক্ষ্যে নানামুখী পদক্ষেপ গ্রহণ করেছেন। শিক্ষা বিস্তারে, মাতৃমৃত্যু প্রতিরোধে ভাতার ব্যবস্থা করা হয়েছে, স্বামী পরিত্যক্তা ও বিধবা নারীদের মূলধারায় নিয়ে আসার উদ্যোগ নেয়া হয়েছে। অন্যদিকে নারী সাংসদ সদস্যরা তাদের নিজ নিজ এলাকায় কর্মসূচী বাস্তবায়ন করছে। সমঅধিকার চাওয়া নয়, অর্জন করতে হবে; রাজনীতিতে নারীদের ৩৩% প্রতিনিধিত্ব নিশ্চিত করার লক্ষ্যে নারী আন্দোলনকারী সংগঠন, সরকার প্রতিনিধি ও সিভিল সোসাইটিকে সকলকে ঐক্যবদ্ধভাবে কাজ করতে হবে; তৃণমূলের নারীদের এগিয়ে নিয়ে আসতে সাংসদদের জোরালোভাবে কাজ করতে হবে; স্থানীয় সরকারের নারী ভাইস চেয়ারম্যানদের কাজ করার সুযোগ দিতে হবে এবং তাদের যথাযথ মূল্যায়ন করতে হবে; বরাদ্দে বৈষম্য দূর করতে হবে; সাসংদদের নির্বাচিত হওয়ার পর কাজের শুরুতে ওরিয়েন্টেশন দিতে হবে; নারীদের সরাসরি নির্বাচনে অংশগ্রহণ বৃদ্ধির লক্ষ্যে কাজ করতে হবে;  নারীর প্রতি সহিংসতা প্রতিরোধে নারী নির্যাতনকারীদের প্রকৃত শাস্তি নিশ্চিত করতে হবে। মৌলবাদী শক্তিকে প্রতিহত করতে ঐক্যবদ্ধ করতে হবে; উঠান বৈঠকের মাধ্যমে নারীদের সচেতন করতে হবে; নারী  বাংলাদেশ মহিলা পরিষদের সাথে সরকার প্রধানের একাত্মতা সবসময় রয়েছে, ভবিষ্যতেও থাকবে।’ 

সভা পরিচালনা করেন বাংলাদেশ মহিলা পরিষদের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক সীমা মোসলেম।

ইউ

বীরকন্যা প্রীতিলতার নামে সড়ক

প্যারিসে বাংলাদেশি বংশোদ্ভূত কৃতী শিক্ষার্থীদের সংবর্ধনা

৯০ দিনে দক্ষিণাঞ্চলে আমূল পরির্বতন

মেলোনি হতে পারেন ইতালির প্রথম নারী প্রধানমন্ত্রী  

ইভ্যালি ফিরছে স্মার্টফোন বিক্রির মধ্য দিয়ে

৫ খাবার: কার্বোহাইড্রেটে ভরপুর হলেও স্বাস্থ্যকর

স্বাধীনতার পঞ্চাশ বছরেও নৌপথ নিরাপদ নয়ঃ কাদের

নৌকাডুবি : ২৩ জনের পরিচয় মিলল

‘বিএনপি জ্বালাও পোড়াও রাজনীতি করেছে’

বিপিএলে দল পেলো না সাকিবের মোনার্ক মার্ট

ইডেন ছাত্রলীগের দুই গ্রুপের সংঘর্ষ

বীজন নাট্য সন্মাাননা পেলেন কবি গোলাম মাওলা জসিম

‘শারদীয় দুর্গাপূজা নির্বিঘ্ন করতে ব্যবস্থা গ্রহণ করবে সরকার’

বাংলাদেশে ফার্মাসিস্টদের নিয়োগ বাধ্যতামূলক করার দাবি

বিপিএলের ৭ ফ্র্যাঞ্চাইজির নাম ঘোষণা