ঢাকা, বাংলাদেশ

সোমবার, মাঘ ১৬ ১৪২৯, ৩০ জানুয়ারি ২০২৩

English

নারী নির্যাতন

ধর্ষণের অভিযোগে ৯ জনের বিরুদ্ধে মামলা

প্রকাশিত: ০০:০০, ১১ এপ্রিল ২০২২

ধর্ষণের অভিযোগে ৯ জনের বিরুদ্ধে মামলা

উইমেনআই প্রতিবেদক:
গৃহকর্মীর কাজের নামে তরুণীকে জিম্মি করে ধর্ষণ ও পতিতার কাজ করানোর অভিযোগে রাজধানীর মুগদা থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) মো. জামাল উদ্দিন মীর ও ঢাকা মহানগর দক্ষিণের ৩৭নং ওয়ার্ড যুবলীগের বহিষ্কৃত সভাপতি মো. জাভেল হোসেন পাপনসহ ৯ জনের বিরুদ্ধে মানবপাচার আইনে মামলা দায়ের হয়েছে।

রোববার (১০ এপ্রিল) ঢাকার মানবপাচার অপরাধ দমন ট্রাইব্যুনালে ভুক্তভোগী তরুণী বাদী হয়ে মামলাটি দায়ের করেন। ট্রাইব্যুনাল মামলাটি গ্রহণ করে অভিযোগ তদন্ত করে পুলিশের অপরাধ তদন্ত বিভাগকে (সিআইডি) প্রতিবেদন দাখিলের নির্দেশ দিয়েছেন।

মামলার অন্য আসামিরা হলো- কেরানীগঞ্জের কোন্ডা ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান মো. সাইফুল ইসলাম, ঢাকা মহানগর দক্ষিণের ৩৭নং ওয়ার্ড যুবলীগের সাবেক সভাপতি মো. জাভেল হোসেন পাপন, মো. মোখলেছ, মো. আনিসুল বাসার রতন, মো. জসিম, মো. কবির ওরফে মিয়াজ, মো. আলাউদ্দিন ও মোসা. আনোয়ারা বেগম আঙ্গুরী।

মামলার অভিযোগে বলা হয়, ভুক্তভোগী তরুণী লঞ্চে করে ঢাকা আসার পথে আসামি ঢাকা মহানগর দক্ষিণের ৩৭ নং ওয়ার্ড যুবলীগের সাবেক সভাপতি মো. জাভেল হোসেন পাপন, মো. মোখলেছ ও কবির ওরফে মিয়াজের সঙ্গে পরিচয় হয়। এরপর তারা আসামি আনোয়ারা বেগম আঙ্গুরীর বাসায় ভুক্তভোগী তরুণীকে ঝিয়ের কাজ করায়।

অতঃপর আসামিরা পরস্পর যোগসাজশে ভুক্তভোগী তরুণীকে জিম্মি করে তাকে প্রতিনিয়ত ধর্ষণ করতো। এছাড়া আসামিরা ঝিয়ের কাজের কথা বলে দীর্ঘদিন যাবৎ তাকে আটকে রেখে জোরপূর্বক পতিতার কাজ করিয়ে আসছিল। এ মামলার আসামি আনোয়ারা বেগম আঙ্গুরী ভুক্তভোগী তরুণীর কথিত নানী সেজে অন্যান্য আসামিদের সহযোগিতায় গত ২৯ মার্চ আসামি কোন্ডা ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান মো. সাইফুল ইসলাম, মো. মোখলেছ ও কবির ওরফে মিয়াজসহ অজ্ঞাত ২/৩ জন জোরপূর্বক পর্যায়ক্রমে ধর্ষণ করে।

পরে ভুক্তভোগী তরুণী আসামিদের জিম্মি দশা থেকে কৌশলে পালিয়ে মুগদা থানায় হাজির হন। সেখানে কর্তব্যরত কর্মকর্তা ঘটনার বিবরণ জানিয়ে মামলা গ্রহণের অনুরোধ করেন। কিন্তু মুগদা থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) ভুক্তভোগী তরুণীর ধর্ষণ মামলা না নিয়ে ঘটনা ধামাচাপা দেন এবং তাকে নানা ধরনের ভয়ভীতি দেখিয়ে থানা থেকে জোরপূর্বক বের করে দেন।

একইদিন ভুক্তভোগী তরুণী মুগদা জোনের সহকারী পুলিশ কমিশনারের (এসি) কার্যালয়ে গিয়ে দেখা করে ঘটনার বিবরণ জানান। তখন ভুক্তভোগী তরুণীকে আবারও মুগদা থানার ওসির কাছে পাঠানো হয়। আবারও সেখানে গেলে মামলা না নিয়ে সাদা কাগজে স্বাক্ষর নিয়ে তাকে থানা থেকে বের করে দেওয়া হয় বলে অভিযোগ পাওয়া গেছে।


উইমেনআই২৪ ডটকম//এল// 10.13 am
 

 

শুটিংয়ে দগ্ধ অভিনেত্রী শারমিন আঁখি

যারা পাচ্ছেন জাতীয় চলচ্চিত্র পুরস্কার ২০২১

আওয়ামী লীগ কখনো পালায় না: প্রধানমন্ত্রী

এইচএসসি ও সমমানের ফল প্রকাশ ৮ ফেব্রুয়ারি

একাদশে চূড়ান্ত ভর্তির সময় বাড়ল

গুলিবিদ্ধ ওড়িশার স্বাস্থ্যমন্ত্রী মারা গেছেন

ইংল্যান্ডকে উড়িয়ে ইতিহাসের সাক্ষী ভারতের মেয়েরা

সাবরিনা এসএসসি পাস করেন ৮ বছর বয়সে

শিশুদের জন্য নিরাপদ পরিবেশ গড়ে তোলার আহ্বান রাষ্ট্রপতির

অন্তর্বর্তীকালীন নির্বাচনের সিদ্ধান্ত প্রত্যাখ্যান

দেশের প্রথম স্কুল অ্যাপ ‘শিক্ষায়তন’

বাবার কেনা কেক খেয়ে দুই বোনের মৃত্যু

সিৎসিফাসকে হারিয়ে নাদালের পাশে জোকোভিচ

গ্রামজুড়ে শুধুই ‘জ্যান্ত’ পুতুল! 

‘বিদ্যুৎ, গ্যাস ও তেলের দাম বাড়াতে পারবে সরকার’

Social Islami Bank Limited