Women Eye
প্রিন্টঃ ২৯ জুন ২০২২, ১২:৩৩ পি. এম.
 

ঈদ শেষে এবার ঢাকায় ফিরছে মানুষ

প্রকাশিতঃ ০৪ মে ২০২২
ঈদ শেষে এবার ঢাকায় ফিরছে মানুষ

উইমেনআই২৪ প্রতিবেদক: ঈদের একদিন পরেই আবার মানুষ ঢাকায় ফিরতে শুরু করেছে। দেশের বিভিন্ন স্থান থেকে দুপুরের পর যাত্রীবাহী বাসগুলো ঢাকায় ফিরতে শুরু করেছে। তবে তুলনামূলকভাবে যাত্রীর সংখ্যা কম ছিল। তবে মুন্সীগঞ্জের শিমুলিয়া ফেরিঘাটে আজও ঘরমুখো মানুষের চাপ রয়েছে। ঈদের সময় যারা যেতে পারেননি তারা আজ গ্রামের উদ্দেশ্যে ছুটছে। এ কারণে শিমুলিয়া ঘাটে যাত্রী এবং যানবাহনের চাপ বেড়েছে বলে জানা গেছে।

জানা গেছে, দুপুরের পর গাবতলী বাস টার্মিনালে দূরপাল্লার অনেক বাস এসেছে। বৃহস্পতিবার যাদের অফিস করতে হবে তারা অনেকটা নির্ঝঞ্জাটে ঢাকায় এসে পৌঁছেছেন। শ্যামলী পরিবহনের বাসে ঢাকায় পৌঁছে শওকত হোসেন জানান, বৃহস্পতিবার অনেকেই অফিসে আসবেন না। তাই তাকে অফিসে উপস্থিত থাকতেই হবে। এ কারণেই একেবারে নির্ঝঞ্জাটে আজ ঢাকায় চলে এসেছি।

মহাখালী ও সায়েদাবাদ টার্মিনালে ঈদ শেষে লোকজনকে ঢাকায় ফিরতে দেখা গেছে। সরকারি এবং বেসরকারি বেশিরভাগ অফিসে বৃহস্পতিবার থেকে কার্যক্রম শুরু হবে। ছুটি না থাকায় তাই ঢাকায় ফিরতে হয়েছে বলে যাত্রীরা জানান। একটি বাসে ২০ থেকে ২৫ জন যাত্রী নিয়ে ঢাকায় ফিরছে।

পরিবহন কর্মীরা জানান, শনিবার বিকেল থেকে ঢাকামুখী মানুষের চাপ বাড়বে। অনেকেই শনিবার রওনা হয়ে রবিবারে অফিস করবেন। তবে রাস্তার পরিস্থিতি ভালো হওয়ায় যাওয়ার সময় যেমন ভোগান্তি হয়নি তেমনি আসার সময় ভোগান্তি হবে না।

সদরঘাট টার্মিনালে সকালে লঞ্চগুলো বিভিন্ন গন্তব্য থেকে পৌঁছে। তবে সব লঞ্চে যাত্রী ছিল খুবই কম। শনিবার থেকে লঞ্চগুলোতেও যাত্রীর চাপ বাড়বে বলে লঞ্চের লোকজন আশা করছেন।

এদিকে ব্যতিক্রম পাওয়া গেছে মুন্সীগঞ্জের শিমুলিয়া ফেরিঘাট। বুধবার দুপুরের দিকে এই ঘাটে ঘরমুখো মানুষের চাপ বেড়ে যায়। যারা ঈদের আগে যেতে পারেননি তারাই এখন বাড়ি ফিরছেন। এ কারণে ঘাটে মানুষের চাপ বেড়েছে। এই ঘাটে দুপুর পর্যন্ত পাঁচ শতাধিক যানবাহন পারাপারের অপেক্ষায় রয়েছে বলে বিআইডব্লিউটিএ সূত্রে জানা গেছে।

শিমুলিয়া ঘাটের নদীবন্দর কর্মকর্তা শাহাদাত হোসেন বলেন, এই ফেরি ঘাটে আজও ঘরমুখো যাত্রীদের চাপ রয়েছে। দশটি ফেরি এই ঘাটে যাত্রী এবং যানবাহনগুলো পারাপারে নিয়োজিত রয়েছে। প্রতিটি ফেরিতেই যাত্রী এবং যানবাহনের ব্যাপক চাপ রয়েছে। ঈদ শেষ হলেও বিপুল সংখ্যক যাত্রী এখনো গ্রামের বাড়িতে ফিরে যাচ্ছে। ৮৫টি লঞ্চ ১৫৪টি স্পিডবোট চলছে। সকালে কালবৈশাখী ঝড় হওয়ার কারণে আধা-ঘণ্টা লঞ্চ-স্পিডবোট চলাচল বন্ধ ছিল। পরে আবার চলাচল শুরু হয়। যাত্রীরা ফেরি, লঞ্চ স্পিডবোটে করে পদ্মা পার হচ্ছে। ঘাটে বর্তমানে পারাপারের অপেক্ষায় রয়েছে ৫ শতাধিক যানবাহন।

এদিকে দক্ষিণ-পশ্চিমাঞ্চলের বিভিন্ন জেলা থেকে মানুষ ঢাকায় ফিরতে শুরু করেছে। দুপুরের পর থেকে বিভিন্ন জেলার যাত্রীবাহী বাসগুলো নদী পার হচ্ছে। তবে ঢাকামুখী যাত্রী ও যানবাহনের চাপ খুবই কম। বেশিরভাগ আসনই ছিল ফাঁকা।

উইমেনআই২৪//ইউ//০৪-০৫-২০২২//৪:৪৪ পিএম//