বুধবার, ৪ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৯
১৮ মে ২০২২ ঢাকা, বাংলাদেশ
যুক্ত থাকুন

আর্কাইভ
সর্বশেষ

ইসরাইলি আগ্রাসনে অসহায় ফিলিস্তিন

উইমেনআই২৪ ডেস্ক: অধিকৃত পশ্চিম তীরে ফিলিস্তিনি বসতি উচ্ছেদ ঘিরে আবারও উত্তেজনা দেখা দিয়েছে। ইসরাইলি বাহিনীর সঙ্গে সংঘর্ষে বেশ কয়েকজন ফিলিস্তিনি আহত হয়েছেন। এদিকে পশ্চিম তীরে আরও চার হাজার বসতি নির্মাণের পরিকল্পনা হাতে নিয়েছে ইসরাইল। যে কোনো দিন এর অনুমোদন দিতে পারে নাফতালি সরকার।

একদিকে ইসরাইলি বাহিনীর সমর যান ও আগ্নেয়াস্ত্র, অন্যদিকে ইটপাথর নিয়ে প্রতিরোধের চেষ্টা সাধারণ ফিলিস্তিনিদের। শনিবার (৭ মে) পশ্চিম তীরের একটি গ্রামে ‘অপরাধীকে’ ধরার নামে ইসরাইলি বাহিনী অভিযান চালালে, তাদের সঙ্গে সংঘর্ষে জড়িয়ে পড়েন ফিলিস্তিনিরা। এতে বেশ কয়েকজন আহত হন। খবর আল জাজিরার।

এক বিবৃতিতে ইসরাইলি কর্তৃপক্ষ জানায়, গত বছরের ডিসেম্বরে আল হারিথিয়া গ্রামে ইসরাইলি বসতি স্থাপনকারীকে গুলি করে হত্যা করে এক ফিলিস্তিনি। শনিবার অভিযুক্তের বাড়ি ভাঙতে গেলেই সংঘর্ষ শুরু হয়। বাড়িটি ইসরাইলি একটি আদালতের নির্দেশের পরই ভেঙে ফেলার দাবি করেছে তারা। এর আগেও ওই ঘটনায় জড়িত সন্দেহে বেশ কয়েকজন ফিলিস্তিনির বাড়ি ধ্বংস করে দেয় ইসরাইলি সেনারা।

এদিকে পশ্চিম তীরে নিজেদের বসতি আরও বাড়ানোর পরিকল্পনা করছে ইসরাইল। এক টুইট বার্তায় দেশটির স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী জানান, আগামী সপ্তাহেই নতুন করে চার হাজার বসতি স্থাপনের অনুমোদন দেওয়া হবে। নতুন বসতিগুলো অধিকৃত পশ্চিম তীরের বিভিন্ন এলাকায় স্থাপন করতে নির্দেশনা দেওয়া হয়েছে।

ইসরাইলের গণমাধ্যমের তথ্য অনুযায়ী, মার্কিন প্রেসডিন্ট জো বাইডেনের সফরের আগেই এ বসতিগুলো গড়ে তুলতে চায় নাফতালি প্রশাসন। আগামী মাসেই ইসরাইল সফর করবেন বাইডেন। যদিও ইসরাইলের এ ধরনের পদক্ষেপের বিরোধিতা করে আসছে হোয়াইট হাউস।

পশ্চিম তীরে অন্তত ২৯ লাখ ফিলিস্তিনির বসবাস। অন্যদিকে, আন্তর্জাতিক আইন অমান্য করে অবৈধভাবে সেখানে বসতি গড়ে তুলেছে প্রায় পাঁচ লাখ ইসরাইলি।

উইমেনআই২৪ডটকম// জে // ০৮-০৫-২০২২//১১.২৭ এ এম

Mujib Borsho

সর্বশেষ

শীর্ষ সংবাদ:
ঢাকায় ডেঙ্গু সংক্রমিত হয়ে ৫ রোগী হাসপাতালে ভর্তি         করোনায় টানা ২৮ দিন মৃত্যুশূন্য দেশ         ন্যাটোভুক্ত হতে আনুষ্ঠানিক আবেদন ফিনল্যান্ড ও সুইডেনের         ফের বাংলাদেশ-ভারত ট্রেন চালু হবে ১ জুন         হজে যেতে না পারলে টাকা তুলে নেওয়ার নির্দেশ         ‘মুজিব’ পোস্টারে ছেয়ে গেছে কান প্রাঙ্গণ         গ্রামীণফোনের স্কিল ডেভেলপমেন্ট সেন্টার উন্মোচন         রাজীব গান্ধী হত্যায় দণ্ডিত আসামি ৩১ বছর পর মুক্ত         ‘সুবিধা নিতেই নির্বাচনী মাঠ গরম করতে চাইছে বিএনপি’         অ্যান্টিবায়োটিকের যথেচ্ছ ব্যবহার রোধে সিদ্ধান্ত         বিদ্যুতের দাম বাড়ানোর সুপারিশ         মালামাল কিনতে এসে অজ্ঞান পার্টির খপ্পরে ব্যবসায়ী         এনায়েত উল্লাহ আব্বাসীর বিরুদ্ধে মামলা         জাতীয় জাদুঘরকে আধুনিকায়ন করার উদ্যোগ: সংস্কৃতি প্রতিমন্ত্রী         ‘মিশন এক্সট্রিম’-এর দুই পুরস্কার         প্রথম বাংলাদেশি হিসেবে টেস্টে মুশফিকের ৫ হাজার রান         বজ্রসহ বৃষ্টির আভাস         সিরাজগঞ্জে ট্রাক চাপায় শিশু ও নারী নিহত         কক্সবাজারে যত্রতত্র স্থাপনা নির্মাণ না করার নির্দেশ প্রধানমন্ত্রীর         কানের উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে জেলেনস্কির ভাষণ         মুশফিক-লিটন জুটির সেঞ্চুরি