বৃহস্পতিবার, ১২ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৯
২৬ মে ২০২২ ঢাকা, বাংলাদেশ
যুক্ত থাকুন

আর্কাইভ
সর্বশেষ

এক গুলিতেই শেষ হয়ে গেল ২০ বছরের প্রেম

উইমেনআই২৪ ডেস্ক: ২০ বছর আগে ইউক্রেনের বুচা শহরের একটি হাসপাতালে তাদের দেখা হয়েছিল। ওই হাসপাতালে কাজ করতেন ইরিনা আব্রামোভা। হাসপাতালে ছাদ সারাতে এসেছিলেন তরুণ এক যুবক। নাম ওলেহ্। কাজের ফাঁকে পেশীবহুল, সুদর্শন ওই যুবককে এক ঝলক দেখেই প্রেমে পড়ে যান ইরিনা।

তিনিই প্রথম এগিয়ে গিয়ে ওলেহ্‌র সঙ্গে কথা বলেন। তার পর নিয়মিত যোগাযোগ, দেখা-সাক্ষাৎ। প্রেম গভীর হতে এক সঙ্গে বুচায় থাকতেও শুরু করেন তারা। বিয়েও করেন। ইরিনা ওলেহ্কে ডাকতেন ‘সানশাইন’ (রৌদ্রকরোজ্জ্বল) বলে আর ওলেহ্ তার নাম দিয়েছিলেন ‘কিটি’। কিন্তু সেই কুড়ি বছরের প্রেম সেই শেষ হয়ে গেল একটি গুলিতে।

রাশিয়ান সৈন্যদের গুলিতে মারা গিয়েছেন ওলেহ্। যে দিন তাদের বাড়ি হামলা চালায় রুশ সেনা, সেই দিনটির কথা ভাবলেই বুক কেঁপে ওঠে ইরিনার। এখনও বিশ্বাস করে উঠতে পারেন না কিছুই।

৫ মার্চ সকালে রুশ সেনারা তাদের বাড়ির জানলা দিয়ে একটি গ্রেনেড ছোড়ে। বাডি়তে আগুন ধরে যায়। ওলেহ্‌র মাথায় বন্দুক ধরে তাকে বাইরে নিয়ে যায়। তাকে বাঁচাতে ছুটে বের হন ইরিনা। কিন্তু পর মূহূর্তেই দেখেন মাটিতে মুখে থুবড়ে পড়ে রয়েছেন ওলেহ্। কান থেকে বেরিয়ে আসছে রক্ত।

ইরিনার ঠাঁই হয়েছে বোমা নিরোধক আশ্রয়স্থলে। তবু মাঝে মাঝে চলে আসেন ধ্বংসস্তুপে পরিণত হওয়া বাড়িকে দেখতে। দীর্ঘ ক্ষণ শূন্য দৃষ্টিতে তাকিয়ে থাকেন বাড়িটির দিকে। ওলেহ্-র সঙ্গে তার সেই প্রেমের দিনগুলির স্মৃতি মনের মধ্যে তরঙ্গ তোলে।

সে দিন এক রাশিয়ান কম্যান্ডার ইরিনার বুকে বন্দুক তাক করেছিলেন। এক বার নয়। পর পর তিন বার। “গুলি করুন! গুলি করুন!”— চিৎকার করেছিলেন ইরিনা। কিন্তু তাকে ছেড়ে দিয়ে চলে যায় সেনারা।

ইরিনা অনুশোচনা, কেন সে দিন ট্রিগারটা টানলেন না ওই সেনা। ঘটনার পর বার কয়েক আত্মহত্যার কথাও ভেবেছিলেন তিনি। কিন্তু পরে সরে এসেছেন সেই ভাবনা থেকে। কারণ তার মতে, আত্মহত্যা পাপ। পাপ করলে তিনি স্বর্গে যেতে পারবেন না। তা হলে তো তার স্বামীর দেখা হবে না!

এখন ভালবাসার মানুষটির সঙ্গে চিরমিলনের আশায় দিন গুনছেন ইরিনা। ‍সূত্র: আনন্দবাজার


উইমেনআই২৪ডটকম// জে // ০৩-০৫-২০২২//০৫.৪৬ পি এম

Mujib Borsho

সর্বশেষ

শীর্ষ সংবাদ:
সেনেগালের হাসপাতালে অগ্নিকাণ্ডে ১১ নবজাতকের মৃত্যু         ফ্রান্সে মুক্তি পাচ্ছে সিয়াম-পূজা অভিনীত ‘শান’         লিবিয়ার বন্দিদশা থেকে দেশে ফিরছেন ১৬০ জন         শেখ হাসিনাকে হত্যাচেষ্টা: ফাঁসির আসামি গ্রেপ্তার         বিশ্বে করোনার তাণ্ডবে বেড়েছে মৃত্যু, কমেছে আক্রান্ত         সিরাজগঞ্জে ট্রাক-লেগুনা সংঘর্ষে নিহত ৪         ‘ইভিএম ভার্চুয়ালি ম্যানুপুলেট করা অসম্ভব’         কর্মসংস্থান ব্যাংকে নিয়োগ পেলেন যারা         রোবট তৈরির উৎসবে মেতেছে কুমিল্লার শিক্ষার্থীরা         ‘বিশ্বে আমাদের সম্মান বেড়েছে’         আমি বেঁচে আছি: হানিফ সংকেত         মৃত্যুদণ্ডপ্রাপ্ত আসামি হুজির প্রতিষ্ঠাতা মুফতি হাই গ্রেপ্তার         বিদ্যুৎ সংযোগ পেল পদ্মা সেতু         শনিবার দেশে পৌঁছাবে গাফফার চৌধুরীর মরদেহ         নারীর ক্ষমতায়নে দক্ষতা-সক্ষমতা বাড়ানোর আহ্বান         নায়িকা এমিকে সন্তান নেওয়ার পরামর্শ দিলেন পরীমনি         দীপিকার উপহার পেয়ে বাকরুদ্ধ শাশ্বতর মেয়ে         পিটিআইয়ের ‘আজাদী মার্চ’, গ্রেপ্তার হতে পারেন ইমরান খান         নজরুলের লেখনী অন্যায়ের প্রতিবাদ করতে শেখায়: রাষ্ট্রপতি         মানুষের মুক্তি আর সাম্যের জয়গানে স্বতন্ত্র নজরুল: তথ্যমন্ত্রী