বুধবার, ৪ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৯
১৮ মে ২০২২ ঢাকা, বাংলাদেশ
যুক্ত থাকুন

আর্কাইভ
সর্বশেষ

পদ্মা-মেঘনার ঢেউ পেরিয়ে সমুদ্র দ্বীপে

ফারিয়া রহমান: লঞ্চ ধরতে যাত্রীদের হুড়োহুড়ি। কেউ কেবিনে আয়েশী ঢঙে গল্পে মেতেছেন। কেউ কাঁথা-চাদর আর ব্যাগকে বালিশ বানিয়ে বিছানা করেছেন। রাতভর যাত্রার প্রস্তুতি।

সময়ের সঙ্গে সঙ্গে কানায় কানায় পূর্ণ হলো ডেক। ফটকের সামনে ছোট্ট টেবিল নিয়ে বসা ‘টিকিট মাস্টার’। তিনি দিচ্ছেন টিকিট।

যাবো নোয়াখালীর হাতিয়া দ্বীপে। রাতভর বুড়িগঙ্গা ছাড়িয়ে পদ্মা-মেঘনা হয়ে সমুদ্র দর্শনে যাত্রার প্রস্তুতিতে খাবার-পানিসহ লঞ্চের তৃতীয় তলায় নির্ধারিত কামড়ায় পৌঁছে গেলাম। পরিপাটি কেবিনের খাটের ওপরে ঝুলছে লাইফ জ্যাকেটের ব্যাগ। ছোট্ট, দুরন্ত একটি ছেলে লঞ্চের মধ্যে খেলাধুলার বন্দোবস্ত করছিল। কুমির আর হাঙরের ভয় দেখিয়ে তাকে থামানো হলো।

বিকেল পেরিয়ে সন্ধ্যা ছুঁইছুঁই। ঘণ্টা বাজিয়ে সারেং সিগন্যাল দিলেন ইঞ্জিন চালু করার। লঞ্চের সঙ্গে সঙ্গে কেঁপে উঠলো বুকটাও! নোঙরের দড়ি খুলে নেওয়া হলো। তুলে নেওয়া হলো কাঠের পাটাতন। লঞ্চ ছেড়ে দিলো।

ধীরগতিতে লঞ্চ ছুটছে নদীর বুকে। দুই পাশে বিভিন্ন প্রতিষ্ঠানের বিজ্ঞাপন, কারখানার বিলবোর্ড। কোথাও ঘনঘন গাছ। নদীর তীরে, চরে বহু নৌকা উল্টে রাখা হয়েছে। সেগুলো সারাই হবে। আবার কোনোটায় আলকাতরা মাখাচ্ছেন কিছু লোক। লঞ্চ নামলো পদ্মা নদীতে। ঢেউয়ের তোর দেখে উচ্ছ্বসিত হলাম। লঞ্চের গায়ে ধাক্কা খেয়ে আবার নদীতে মিলিয়ে যাচ্ছে পানি।

কেবিন ছেড়ে বসলাম বেলকনিতে। দুই পাশ দিয়ে একের পর এক ছোট-বড় নৌযান পেরিয়ে যাচ্ছে। এ পথই দক্ষিণ পূর্বাঞ্চলের মানুষের চলাচলের একমাত্র উপায়। হাতিয়া দ্বীপে এই লঞ্চসহ আরেকটি লঞ্চ ঢাকা থেকে ছুটে আসে আবার ফিরে যায়। মাঝে মুন্সিগঞ্জ, তজুমদ্দিন, মনপুরাসহ কয়েকটি জায়গায় একটু করে থেমে যাত্রী ওঠানো-নামানো সেরে নেয়।

শীতের হিমেল হাওয়ার জুবুথুবু হয়ে কেবিনে বসে রইলাম। কাঁচ-ঘেরা জানালার পর্দা সরিয়ে কুয়াশা ভেদ করে দেখার চেষ্টা করলাম নদীর দুই পাড়। তীরে মাছের নৌকার সারি  দেখে মুগ্ধ হলাম।

বঙ্গোপসাগরের দ্বীপ জেলার নানান জায়গার নামও বিচিত্র। চর ওয়াপদা, চর বাটা, চর আমানুল্লা, চর জুবিলি, চর জব্বার। লঞ্চের দেয়ালে ঠাঁই পেয়েছে নতুন মুক্তি পাওয়া ‘শ্বশুর বাড়ি জিন্দাবাদ-২’র পোস্টার। নায়িকা অপু বিশ্বাসের সঙ্গে দাঁড়িয়ে বাপ্পি চৌধুরী, পাশেই ক্ষিপ্ত চোখে সাদেক বাচ্চু। দূর থেকে ভেসে আসছিল বাংলা সিনেমার গানের শব্দ। লঞ্চেই বাজছে কারো মুঠোফোনে!

রাত বাড়ছে। নদীর মাঝ বরাবর ছুটে চলছে লঞ্চ। দুপাশে যতদূর চোখ যায় শুধু পানি আর পানি। বাকিপথ ঘুমিয়ে কাটাতে আবারো কেবিনের ভেতর।

ভোরে ঘুম ভাঙলো আজানের সুরে। ঢাকা থেকে বহুদূরে এসেও সেই একই সুর! দূর থেকে আবেগাপ্লুত কণ্ঠে ভেসে আসছে আজান। ঘুম জর্জর চোখে প্রথম দেখা মেঘনা নদী। ততক্ষণে লঞ্চ পৌঁছেছে বঙ্গোপসাগরের দ্বীপ উপজেলা হাতিয়ার তমরদিতে, অর্থাৎ শেষ ঘাটে। কোলাহলমুক্ত শান্ত দ্বীপটিতে নামতে নামতেই পরিচয় মোটরসাইকেল চালক জিল্লুর ভাইয়ের সঙ্গে। কথায় কথায় জানালেন- সড়ক যোগাযোগহীন উপজেলাটিতে সম্প্রতি বিদ্যুতের সংযোগের জন্য খুঁটি বসানো হয়েছে। বিদ্যুৎ আসলে অনেক কিছুই পরিবর্তন হবে। তবে পুরো দেশের সঙ্গে সরাসরি কোনো সংযোগ কখনোই সম্ভব নয় বলে ধারণা তার।

উইমেনআই২৪ডটকম/জে//২২-০৪-২০২২//০৭.৩১ পি এম

Mujib Borsho

সর্বশেষ

শীর্ষ সংবাদ:
বাংলাদেশ ব্যাংক কর্মকর্তাদের বিদেশ ভ্রমণ বাতিল         আপনি অন্যদের থেকে কত বেশি বুদ্ধিমান বলে দেবে এই ছবি         রাজধানীর শ্যামপুর শিল্পাঞ্চলে আর জলাবদ্ধতা হবে না: তাপস         ‘আগামী নির্বাচন সংবিধান অনুযায়ী হবে’         বাজেট অধিবেশন শুরু ৫ জুন         ৯ সচিব পদে রদবদল         হজ নিবন্ধনের সময় বাড়ল         ৭ কোটি টাকার গম নিয়ে ডুবল এমভি তামিম জাহাজ         ফরিদপুরে ইউপি চেয়ারম্যানের শিশু সন্তানকে কুপিয়ে হত্যা         বঙ্গবন্ধু টানেলের টোল আদায় করবে চীনা প্রতিষ্ঠান         ইসলামী ব্যাংকের সঙ্গে জেপি মরগান চেজ ব্যাংকের দ্বিপাক্ষিক সভা         শ্রীলঙ্কাকে লিড দিল বাংলাদেশ         সয়াবিন তেল শরীরের জন্য ক্ষতিকর: বাণিজ্যমন্ত্রী         পরীমণিকে হত্যা-ধর্ষণ চেষ্টায় বিচার শুরু         মাদ্রাসায় দৃশ্যমান স্থানে বাংলায় সাইনবোর্ড স্থাপনের নির্দেশ         নন-ব্যাংক আর্থিক প্রতিষ্ঠান খাততে শৃঙ্খলার মধ্যে আনতে হবে: শিল্পমন্ত্রী         ‘সারাদেশে নদীভাঙন রোধে পর্যায়ক্রমে স্থায়ী প্রকল্প হচ্ছে’         ঢাকায় ডেঙ্গু সংক্রমিত হয়ে ৫ রোগী হাসপাতালে ভর্তি         করোনায় টানা ২৮ দিন মৃত্যুশূন্য দেশ         ন্যাটোভুক্ত হতে আনুষ্ঠানিক আবেদন ফিনল্যান্ড ও সুইডেনের         ফের বাংলাদেশ-ভারত ট্রেন চালু হবে ১ জুন