শুক্রবার, ১৩ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৯
২৭ মে ২০২২ ঢাকা, বাংলাদেশ
যুক্ত থাকুন

আর্কাইভ
সর্বশেষ

ধর্ষণের অভিযোগে ৯ জনের বিরুদ্ধে মামলা

উইমেনআই প্রতিবেদক:
গৃহকর্মীর কাজের নামে তরুণীকে জিম্মি করে ধর্ষণ ও পতিতার কাজ করানোর অভিযোগে রাজধানীর মুগদা থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) মো. জামাল উদ্দিন মীর ও ঢাকা মহানগর দক্ষিণের ৩৭নং ওয়ার্ড যুবলীগের বহিষ্কৃত সভাপতি মো. জাভেল হোসেন পাপনসহ ৯ জনের বিরুদ্ধে মানবপাচার আইনে মামলা দায়ের হয়েছে।

রোববার (১০ এপ্রিল) ঢাকার মানবপাচার অপরাধ দমন ট্রাইব্যুনালে ভুক্তভোগী তরুণী বাদী হয়ে মামলাটি দায়ের করেন। ট্রাইব্যুনাল মামলাটি গ্রহণ করে অভিযোগ তদন্ত করে পুলিশের অপরাধ তদন্ত বিভাগকে (সিআইডি) প্রতিবেদন দাখিলের নির্দেশ দিয়েছেন।

মামলার অন্য আসামিরা হলো- কেরানীগঞ্জের কোন্ডা ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান মো. সাইফুল ইসলাম, ঢাকা মহানগর দক্ষিণের ৩৭নং ওয়ার্ড যুবলীগের সাবেক সভাপতি মো. জাভেল হোসেন পাপন, মো. মোখলেছ, মো. আনিসুল বাসার রতন, মো. জসিম, মো. কবির ওরফে মিয়াজ, মো. আলাউদ্দিন ও মোসা. আনোয়ারা বেগম আঙ্গুরী।

মামলার অভিযোগে বলা হয়, ভুক্তভোগী তরুণী লঞ্চে করে ঢাকা আসার পথে আসামি ঢাকা মহানগর দক্ষিণের ৩৭ নং ওয়ার্ড যুবলীগের সাবেক সভাপতি মো. জাভেল হোসেন পাপন, মো. মোখলেছ ও কবির ওরফে মিয়াজের সঙ্গে পরিচয় হয়। এরপর তারা আসামি আনোয়ারা বেগম আঙ্গুরীর বাসায় ভুক্তভোগী তরুণীকে ঝিয়ের কাজ করায়।

অতঃপর আসামিরা পরস্পর যোগসাজশে ভুক্তভোগী তরুণীকে জিম্মি করে তাকে প্রতিনিয়ত ধর্ষণ করতো। এছাড়া আসামিরা ঝিয়ের কাজের কথা বলে দীর্ঘদিন যাবৎ তাকে আটকে রেখে জোরপূর্বক পতিতার কাজ করিয়ে আসছিল। এ মামলার আসামি আনোয়ারা বেগম আঙ্গুরী ভুক্তভোগী তরুণীর কথিত নানী সেজে অন্যান্য আসামিদের সহযোগিতায় গত ২৯ মার্চ আসামি কোন্ডা ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান মো. সাইফুল ইসলাম, মো. মোখলেছ ও কবির ওরফে মিয়াজসহ অজ্ঞাত ২/৩ জন জোরপূর্বক পর্যায়ক্রমে ধর্ষণ করে।

পরে ভুক্তভোগী তরুণী আসামিদের জিম্মি দশা থেকে কৌশলে পালিয়ে মুগদা থানায় হাজির হন। সেখানে কর্তব্যরত কর্মকর্তা ঘটনার বিবরণ জানিয়ে মামলা গ্রহণের অনুরোধ করেন। কিন্তু মুগদা থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) ভুক্তভোগী তরুণীর ধর্ষণ মামলা না নিয়ে ঘটনা ধামাচাপা দেন এবং তাকে নানা ধরনের ভয়ভীতি দেখিয়ে থানা থেকে জোরপূর্বক বের করে দেন।

একইদিন ভুক্তভোগী তরুণী মুগদা জোনের সহকারী পুলিশ কমিশনারের (এসি) কার্যালয়ে গিয়ে দেখা করে ঘটনার বিবরণ জানান। তখন ভুক্তভোগী তরুণীকে আবারও মুগদা থানার ওসির কাছে পাঠানো হয়। আবারও সেখানে গেলে মামলা না নিয়ে সাদা কাগজে স্বাক্ষর নিয়ে তাকে থানা থেকে বের করে দেওয়া হয় বলে অভিযোগ পাওয়া গেছে।


উইমেনআই২৪ ডটকম//এল// 10.13 am
 

 

Mujib Borsho

সর্বশেষ

শীর্ষ সংবাদ:
পি কে হালদার পশ্চিমবঙ্গে আরও ১১ দিন জেল হেফাজতে থাকবেন         খাদ্য সঙ্কট নিরসনে পুতিনের প্রস্তাব         দেশে করোনায় মৃত্যু নেই, শনাক্ত ২৩ রোগী         জাপান ও ওইসিডির সহযোগিতা চাইলেন প্রধানমন্ত্রী         রাজধানীতে গৃহবধূর লাশ উদ্ধার         শহীদ বুদ্ধিজীবী কবরস্থানে দাফন করা হবে গাফফার চৌধুরীর মরদেহ         মাদক মামলায় ক্লিন চিট পেলেন শাহরুখ পুত্র         অবশেষে মুখ খুললেন ‘নিখোঁজ’ নুসরাত         বুকার পুরস্কার জিতলো ভারতীয় উপন্যাস ‘টম্ব অফ স্যান্ড’         সোনার দাম কমেছে         ৪৪তম বিসিএসে পরীক্ষার্থীর সংখ্যা বেশি         কুমিল্লা সিটি প্রার্থীদের ডেকেছে ইসি         পথশিশুকে বিয়ে দিল গান্ধি আশ্রম ট্রাস্ট         ভারতে স্বীকৃতি পেল যৌন পেশা         কচ্ছপ জানালো চ্যাম্পিয়নস লিগ চ্যাম্পিয়নের নাম         শনিবার আসছে গাফ্‌ফার চৌধুরীর মরদেহ         সাবেক প্রতিমন্ত্রী গৌতম চক্রবর্তী মারা গেছেন         কাঁচা বাজারে এ সপ্তাহে কাচাঁ মরিচ ও ধনিয়াপাতাসহ বেগুনে আগুন         ঢাকায় টাইগারদের হারে সিরিজ জিতল লংকানরা         পি কে হালদারের বিচার দুই দেশের আদালতেই : দুদক কমিশনার         উদ্বোধনের আগেই সেতু দিয়ে চললো বিয়ের গাড়ি