মঙ্গলবার, ১২ আশ্বিন ১৪২৮
২৮ সেপ্টেম্বর ২০২১ ঢাকা, বাংলাদেশ
যুক্ত থাকুন

আর্কাইভ
সর্বশেষ

লক্ষ্মীপুরের দুই বোনের শিল্পকর্ম যাচ্ছে ইউরোপ ও মধ্যপ্রাচ্যে

লক্ষ্মীপুর সংবাদদাতা: লক্ষ্মীপুরের কলেজে পড়ুয়া দুই বোনেরশিল্পকর্মে মুগ্ধ হয়ে উঠেছেন স্থানীয়সহ দেশী-বিদেশি ক্রেতারা। শখের বশে দুই বোনের রঙ-তুলিতে ক্যানভাস রাঙানোর নৈপুণ্য দেখে চিত্রকর্মে আগ্রহী হয়ে উঠেছেন এখানকার অন্য তরুণীরাও। তাদের এই চিত্রকর্ম আমেরিকাসহ মধ্যপ্রাচ্যের দেশগুলোতেও যাচ্ছে বলে জানান তারা।

প্রতিভাবান এই দুই বোন হলেন, তাসনিম আর তাফহিম। জেলা শহরের মজুপুরে অবস্থিত তাদের বাসার পড়ার কক্ষটা এখন যেন চারুকারু শিল্পের এক মিনি প্রতিষ্ঠান। তারা লক্ষ্মীপুর পৌর শহরের উত্তর মজুপুর এলাকায় ভাড়া থাকেন। চাকরিজীবী বাবা ফজলুর রহিম মাহমুদের বড় মেয়ে ফাতেমাতুজ জোহরা তাসনিম ও ছোট মেয়ে রুবাইয়া আক্তার তাফহিম। তাসনিম লক্ষ্মীপুর সরকারি কলেজের অ্যাকাউন্টিং বিভাগে আর তাফহিম লক্ষ্মীপুর শ্যামলী আইডিয়াল টেকনিক্যাল কলেজে কম্পিউটার ইঞ্জিনিয়ারিংয়ে পড়াশুনা করছেন। তাদের মা নাসিমা আক্তার একজন স্কুল শিক্ষিকা। তবে তারা স্থানীয়ভাবে একটা চারুকারু প্রতিষ্ঠান গড়ে তোলার স্বপ্ন দেখেন বলে জানান।

বাসার ড্রয়িং রুমটা যেন চিত্রকর্মের এক্সিবিশন ফ্লোর। পড়ার রুমটা এখন যেন শিল্পকর্মের প্রতিষ্ঠান। আশেপাশের তরুণীদের কাজ শেখাতে ব্যস্ত রয়েছেন তারা। শিল্পকর্ম মানেই উচ্চমূল্য। সাধারণ মানুষের ক্রয়ক্ষমতার বাইরে, সাধারণ মানুষের মধ্যে এমন ধারণা পাল্টাতেই তারা কাজ করছেন।

দুই বোন জানান, লেখাপড়ার পাশাপাশি তারা রঙ-তুলির চিত্রকর্ম শিখেছিলেন ছোটবেলায়। কোনো প্রতিষ্ঠানে নয়, দাদার কাছে। এরপর বড় বোনের প্রবল ইচ্ছাশক্তি ও মনোবলে আগ্রহী হয়ে উঠেন ছোট বোন তাফহিম। দু’বোন মাঝেমধ্যে সময় পেলে টুকটাক আঁকতেন। সেগুলো নিজেদের ঘরে শোভা পেত আর মনের খোরাক মেটাতো। মূল লক্ষ্য ছিল উচ্চশিক্ষা আর ভালো চাকরি করা। কিন্তু গত বছর থেকে মহামারি করোনায় শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান বন্ধ হয়ে গেলে তারা চিত্রকর্মে মনোযোগী হয়ে উঠেন। বেশ কিছু কাজ করে ফেসবুক পেজ খুলে সেখানে তা ছড়িয়ে দেন। সেগুলো দেখে মুগ্ধ হন দেশ-বিদেশের দর্শক। অনলাইনে অর্ডার আসে। এক দুই করে অনেক অর্ডার আসতে থাকে। তারা আরো উদ্বুদ্ধ হন। বেশ উপার্জনও আসে তাদের। এভাবে বাড়তে থাকে কাজের পরিধি।

তাদের কাজে একে একে যোগ হয় অয়েল পেইন্টিং, মান্ডালা ড্রয়িং, ডুডল আর্ট, ক্যালিগ্রাফি, ক্র্যাফট ডিজাইন, টাইফোগ্রাফি। টিশার্ট, শাড়ি, বোরকা, জামা ইত্যাদি তাদের রঙ-তুলির শৈল্পিক ছোঁয়ায় হয়ে ওঠে মনোমুগ্ধকর। আসে অর্ডার। ইতিমধ্যে প্রতিবেশী শিক্ষার্থী ও বেকার নারীরা তাদের কাছে চিত্রশিল্পের এ কাজ শেখার আগ্রহ নিয়ে ছুটে আসছেন। এরইমধ্যে অনলাইনে একটি বিদেশি প্রতিযোগিতায় অংশ নিয়ে কেপিআর অ্যাওয়ার্ড আর্ট কম্পিটিশন-২ সম্মাননা সনদ অর্জন করেন তারা। আঁকাআঁকিতে তাদের ব্যবহৃত মিডিয়া: আর্কিলিক অন ক্যানভাস।

সম্প্রতি আমেরিকায় পাঁচটি আঁকা ছবি বিক্রি করে ৫০ হাজার টাকা আয় করেন। তাদের আঁকা চিত্রকর্ম প্রকারভেদে ৫০০ থেকে ১০ হাজার টাকা পর্যন্ত বিক্রি করা হয়। এতে মাসিক ৭০-৮০ হাজার টাকা আয় বলেও জানলেন এ দুই বোন।

উইমেনআই২৪//এলএইচ//

Mujib Borsho

সর্বশেষ

শীর্ষ সংবাদ:
উন্নয়নের রূপকার শেখ হাসিনার ৭৫তম জন্মদিন আজ         সংগ্রাম ও সাহসের এক নাম শেখ হাসিনা         প্রধানমন্ত্রীর জন্মদিন উপলক্ষে টিকা ক্যাম্পেইন শুরু কাল         ডেঙ্গুতে আজও দুই মৃত্যু, শনাক্ত ২১৪         রেলের উন্নয়নে বিশেষ অবদান রাখছে ভারত: রেলমন্ত্রী         শেখ হাসিনার জন্মদিনে আওয়ামী লীগের কর্মসূচি         ঢাবির সাংবাদিকতা বিভাগের সাবেক শিক্ষার্থীর মরদেহ উদ্ধার         শেখ হাসিনা এক জীবন্ত কিংবদন্তি: তথ্যমন্ত্রী         করোনাভাইরাসে ২৪ ঘণ্টায় বেড়েছে মৃত্যু-শনাক্ত         ইউপি নির্বাচনে প্রতিপক্ষকে ফাঁসাতে নিরীহ পারুলকে খুন         নিজ ঘরে মিলল নারী ব্যাংক কর্মকর্তার লাশ         চোর সন্দেহে নারীকে পিটিয়ে হত্যার অভিযোগ         জেল থেকে মুক্তি পেল ফিলিস্তিনি নেতা খালিদা জারা         ভারতের উপকূল অতিক্রম করেছে ‘গুলাব’, নামল সংকেত         ১৪ নভেম্বর এসএসসি, ২ ডিসেম্বর এইচএসসি পরীক্ষা         জার্মানির নির্বাচনে হেরে গেল মারকেলের দল         রাজনীতিকে বিদায় জানালেন প্রণবকন্যা শর্মিষ্ঠা         নারী সংখ্যাগরিষ্ঠ সংসদ গড়ে আইসল্যান্ডের ইতিহাস         আফগানিস্তানের বন্ধ হচ্ছে নারীদের ড্রাইভিং প্রশিক্ষণকেন্দ্র         মধ্যরাতে শিশু পুত্রকে গলা কেটে হত্যা করলেন মা         করোনা : সংক্রমণে যুক্তরাজ্য, প্রাণহানিতে শীর্ষে রাশিয়া