রবিবার, ১১ আশ্বিন ১৪২৮
২৬ সেপ্টেম্বর ২০২১ ঢাকা, বাংলাদেশ
যুক্ত থাকুন

আর্কাইভ
সর্বশেষ

নারী অধিকার নিয়ে তালেবানের অবস্থান

উইমেনআই২৪ ডেস্ক: তালেবানের আফগানিস্তানে নারীর অধিকার কতটা রক্ষা পাবে? সাংবাদিক বৈঠকে উত্তর স্পষ্ট করলেন না তালেবান মুখপাত্র। তবে নরম মনোভাবের ইঙ্গিত দিলেন।

পূর্ববর্তী তালেবান শাসনে আফগানিস্তানে নারীর অধিকার সুরক্ষিত ছিল না। এমনই মনে করেন বিশ্বের অধিকাংশ মানবাধিকার কর্মী। এবারেও কি নারীদের প্রতি একইরকম ব্যবহার করবে তালেবান প্রশাসন? কাবুল দখলের পর তালেবানের প্রথম সাংবাদিক বৈঠকে বার বার ফিরে এসেছে সেই প্রশ্ন। উত্তরে তালেবান মুখপাত্র জাবিহউল্লাহ মুজাহিদ জানিয়েছেন, ‘শরিয়া আইনের দৃষ্টিভঙ্গি থেকে নারী অধিকারের বিষয়টি পর্যালোচনা করা হবে।’

মুজাহিদ জানিয়েছেন, নারীদের পড়াশোনা এবং কাজের অধিকার দেওয়া হবে। কিন্তু সেই অধিকার শরিয়া আইন মেনেই দেওয়া হবে। পাশাপাশি তার বক্তব্য, আগামী দিনে আফগান সমাজে নারীদের অবস্থান যথেষ্ট সক্রিয় হবে।

সাংবাদিক সম্মেলনেই নারী অধিকারের বিষয়ে একাধিক প্রশ্ন করা হয় মুজাহিদকে। নারীদের কতদূর পর্যন্ত পড়াশোনা করতে দেওয়া হবে, কী কী কাজ করতে দেওয়া হবে, বাড়ির বাইরে একা বেরতে দেওয়া হবে কি না-- এমন বহু প্রশ্ন সামনে আসে। মুজাহিদ জানান, এ বিষয়ে বিস্তারিত আলোচনা তিনি করতে পারবেন না। আগামী দিনে প্রশাসন এ বিষয়ে তাদের নির্দিষ্ট সিদ্ধান্ত জানাবে। এক নারী সাংবাদিক প্রশ্ন করেন, নারীরা সাংবাদিকতা করতে পারবেন কি না। তাকেও একই উত্তর দেন মুজাহিদ।

তবে মঙ্গলবার সাংবাদিক সম্মেলনের আগে সংবাদমাধ্যমকে এক তালেবান নেতা জানিয়েছিলেন, সরকারে নারী প্রতিনিধিদের কথাও বিবেচনা করছে তালেবান।

নারী অধিকার নিয়ে তালেবানের প্রতিক্রিয়া নিয়ে আফগান সমাজে এবং আন্তর্জাতিক স্তরে বিবিধ আলোচনা শুরু হয়েছে। কোনো কোনো নারী অধিকার কর্মীর বক্তব্য, ১৯৯৬ থেকে ২০০১ সাল পর্যন্ত যে তালেবান সরকার ছিল, তারাও শরিয়া আইনের কথা বলতো। সেখানে দশ বছরের বেশি বয়সের মেয়েদের স্কুলে যেতে দেওয়া হতো না। কোনোরকম বাইরের কাজে তাদের অংশ নিতে দেওয়া হতো না। পুরুষ সঙ্গী ছাড়া রাস্তায় বের হতে দেওয়া হতো না। বোর্খা পরা বাধ্যতামূলক ছিল। তালেবান এবারেও জানিয়েছে, শরিয়া আইন মেনেই নারী অধিকারের বিষয়টি বিবেচনা করা হবে। ফলে আগের চেয়ে বিশেষ কোনো পরিবর্তন হবে না বলেই তারা মনে করছেন।

এর বিপরীত অভিমতও আছে। কোনো কোনো বিশেষজ্ঞের ধারণা, তালেবান আফগান সমাজ এবং আন্তর্জাতিক বিশ্বের মন পেতে চাইছে। ফলে আগের মতো ততটা অনমনীয় মনোভাব তারা দেখাবে না। নারী অধিকারের ক্ষেত্রেও বিষয়টি বিবেচনায় রাখা হচ্ছে। সে কারণেই তারা বলছে, প্রশাসনেও নারীদের প্রতিনিধিত্বের কথা তারা ভাবছে। বস্তুত, স্বাস্থ্য এবং নিরাপত্তা ব্যবস্থার ক্ষেত্রে তালেবান নারীদের ব্যবহার করতে পারে বলে অনেকেই প্রাথমিকভাবে মনে করছেন।

আফগান সমাজেও তালেবানের বক্তব্য নিয়ে ধোঁয়াশা তৈরি হয়েছে। কোনো কোনো নারী মনে করছেন, পরিস্থিতির বদল হবে না। আগের মতোই নারীদের উপর একাধিক নিষেধাজ্ঞা জারি হবে। আবার কেউ কেউ মনে করছেন, পরিস্থিতি অন্তত আগের জমানার মতো হবে না।

আফগান মুখপাত্র স্পষ্টই জানিয়েছেন, নারী অধিকারের বিষয়টি দ্রুত স্পষ্ট হবে। সরকার গঠন হলেই এ বিষয়ে নির্দিষ্ট নির্দেশ জারি হবে। ডয়চে ভেলে

Mujib Borsho

সর্বশেষ

শীর্ষ সংবাদ:
মঙ্গলবার থেকে দেশে আবারও বিশেষ টিকা ক্যাম্পেইন: স্বাস্থ্য অধিদপ্তর         হংকং নারী ফুটবল দলকে ৫-০ গোলে হারাল বাংলাদেশ         সাবেক প্রতিমন্ত্রী মান্নান খান ও তার স্ত্রীর বিচার শুরু         ডেঙ্গু আক্রান্ত হয়ে আরও ২৪২ জন হাসপাতালে         সোমবার ফাইজারের ২৫ লাখ টিকা আসছে         প্রধানমন্ত্রীর জন্মদিনে দেওয়া হবে ৮০ লাখ টিকা         সাংবাদিক নির্যাতন: ডিসি সুলতানাসহ চারজনের পদায়নের বিরুদ্ধে রুল         চার মাসে সর্বনিম্ন মৃত্যু, শনাক্ত ৯৮০         কুমিল্লার আদালতে হেফাজত নেতা মামুনুল হক         সন্ধ্যায় ভারতে আছড়ে পড়বে ঘূর্ণিঝড় ‘গুলাব’         একই স্কুলের শিক্ষক মায়ের পর ছেলেও করোনা আক্রান্ত         মুনিয়াকে ধর্ষণের পর হত্যা: হাইকোর্টে আগাম জামিন রিপনের         শাহজালালে করোনা ল্যাবের পরীক্ষামূলক কার্যক্রম শুরু         ২৪ ঘণ্টায় ময়মনসিংহ মেডিকেলে আরও ৮ জনের মৃত্যু         বিশ্বব্যাপী করোনায় মৃত্যু-আক্রান্ত কমেছে         গুলাবের প্রভাবে সাগর উত্তাল, দুই নম্বর সংকেত         ওয়াশিংটন পৌঁছেছেন প্রধানমন্ত্রী         ওয়াশিংটনের উদ্দেশে নিউইয়র্ক ত্যাগ করেছেন প্রধানমন্ত্রী         হামলার প্রতিবাদে রংপুর রিপোর্টার্স ক্লাবের নিন্দা         ডেঙ্গু আক্রান্ত হয়ে আরও ২২১ জন হাসপাতালে ভর্তি