বুধবার, ১২ শ্রাবণ ১৪২৮
২৮ জুলাই ২০২১ ঢাকা, বাংলাদেশ
যুক্ত থাকুন

আর্কাইভ
সর্বশেষ

অধিকাশ বিধিনিষেধ তুলে নিলো ইংল্যান্ড

উইমেনআই২৪ ডেস্ক: যুক্তরাজ্যজুড়ে করোনাভাইরাসের নতুন একটি ঢেউ শুরু হলেও অধিকাংশ বিধিনিষেধ তুলে নিয়েছে ইংল্যান্ড।

সোমবার মধ্যরাত থেকে বিধিনিষেধ তুলে নেওয়ার পর রাজধানী লন্ডনের অনেক তরুণ বাসিন্দা বিধিনিষেধমুক্ত একটি লাইভ সংগীতানুষ্ঠানে অংশ নেন।

গত বছর মহামারী শুরু হওয়ার পর থেকে এই প্রথম তারা সারারাত ধরে নেচেছেন ও অনেকে মিলে আনন্দ করেছেন বলে জানিয়েছে বার্তা সংস্থা রয়টার্স।

কোভিড-১৯ মহামারীতে বিশ্বে মৃত্যুর সংখ্যায় শীর্ষে থাকা দেশগুলোর একটি ব্রিটেন। দেশটিতে সংক্রমণের নতুন ঢেউ শুরু হলেও প্রধানমন্ত্রী বরিস জনসন ইংল্যান্ডে অধিকাংশ বিধিনিষেধ তুলে নিয়েছেন যাকে কিছু লোক ‘স্বাধীনতা দিবস’ বলে অভিহিত করছে।

বিধিনিষেধ তুলে নেওয়া ঠিক হল কীনা, এপিডিমিওলজিস্টরা তা নিয়ে সংশয়ে থাকলেও ব্রিটেনের তরুণ বয়সীরা দেড় বছরেরও বেশি সময় ধরে কঠোর লকডাউনে আছেন এবং এখন তারা বন্ধুদের সঙ্গে মিলে ফূর্তি করতে চাইছেন।

‘যেন চিরকালের জন্য আমাকে নাচার অনুমতি দেওয়া হয়নি, এমনটাই মনে হচ্ছে’ বলেন পূর্ব লন্ডনের হাকনি এলাকার ওভাল স্পেসের সঙ্গীতানুষ্ঠানে যোগ দিতে আসা ৩১ বছর বয়সী জর্জিয়া পাইক।

তিনি বলেন, ‘আমি নাচতে চাই, আমি লাইভ মিউজিক শুনতে চাই, অন্যান্য লোকজনের সঙ্গে সঙ্গীতানুষ্ঠান উপভোগ করতে চাই।’

তবে আনন্দের জন্য উদ্বেল হয়ে থাকা এই উৎসাহের পাশাপাশি সংক্রমণের নতুন ঢেউয়ে আক্রান্তের সংখ্যা নিয়েও পরিষ্কার উদ্বেগ আছে। এখন যুক্তরাজ্যে প্রতিদিন ৫০ হাজারেও বেশি নতুন রোগী শনাক্ত হচ্ছে।

লাইভ মিউজিক ফিরে আসা উদযাপন করতে আয়োজিত ‘০০:০১’ অনুষ্ঠানস্থলের বাইরে গ্যারি কার্টমিল (২৬) বলেন, ‘আমি খুবই অধীর হয়ে আছি, কিন্তু আসন্ন নিয়তির ভাবনাও এর সঙ্গে মিশে আছে।’

ক্লাবের ভেতরে জড়ো হওয়া লোকজন, তাদের কারও হাতে বিয়ারের গ্লাস, কিছু লোক সঙ্গীতের মূর্ছনায় বিমোহিত, সবাই রাতভর নেচেছেন। অনেকেই সঙ্গীকে জড়িয়ে ধরে ছিলেন, কেউ কেউ চুমু খাচ্ছিলেন আর এর মধ্যেও অল্প কয়েকজনের মুখে মাস্ক ছিল।

ইউরোপের অন্য প্রায় সব দেশের আগে তড়িঘড়ি করে প্রাপ্তবয়স্ক জনসাধারণের ৬৮ শতাংশকে টিকার দুটি ডোজ দেওয়ার পর ইংল্যান্ড থেকে অধিকাংশ বিধিনিষেধ তুলে নেওয়ার পদক্ষেপ নেয় জনসন সরকার। সংক্রমণের পূর্ববর্তী ঢেউয়ের তুলনায় এবার কোভিড-১৯ জনিত কারণে হাসপাতালে ভর্তি হওয়া রোগীর সংখ্যা, গুরুতর অসুস্থতা ও মৃত্যুর সংখ্যা কম হবে বলে ধারণা করছে তারা।  

কতোজন লোক একসঙ্গে জড়ো হয়ে সাক্ষাৎ করতে পারবেন বা কোনো অনুষ্ঠানে উপস্থিত হতে পারবেন এখন তার ওপর আর কোনো বিধিনিষেধ নেই। মধ্যরাতেই নাইটক্লাবগুলো খোলা হয়, পাব ও রেস্তোরাঁয় টেবিল সার্ভিসের আর প্রয়োজন হবে না।

কিছু এলাকায় মাস্ক পরার পরামর্শ দেওয়া হলেও তা বাধ্যতামূলক নয় বলে জানিয়েছে বিবিসি।

নাইটক্লাব, ট্র্যাভেল কোম্পানি ও পরিষেবা শিল্পসহ বিভিন্ন ব্যবসা প্রতিষ্ঠানের মালিকরা অর্থনীতি পুনরায় সচল করার জন্য মরিয়া হয়ে ছিলেন; শিক্ষার্থী, তরুণরা ও অবিভাবকরা কঠোর অনেক নিয়ম কোনো উচ্চবাচ্য ছাড়াই উপেক্ষা করে এসেছেন।  

তারপরও বিধিনিষেধের বিষয়ে ব্রিটিশ সমাজ বিভক্ত হয়ে পড়েছে বলে ধারণা রয়টার্সের। ভাইরাস মানুষ মারা অব্যাহত রাখবে, এমন আশঙ্কায় শঙ্কিত লোকজন কঠোর বিধিনিষেধ ধরে রাখার পক্ষে আর শান্তিকালীন সময়ে সবচেয়ে কঠোর এ বিধিনিষেধে যারা অতিষ্ঠ হয়ে উঠেছেন তারা এর বিপক্ষে মত দিয়েছেন।

রবিবার (১৯ জুলাই) স্থানীয় সময় বিকালে টুইটারে পোস্ট করা এক ভিডিওতে প্রধানমন্ত্রী জনসন বলেছেন, ইংল্যান্ডকে লকডাউন থেকে বের করে আনার এটিই ‘উপযুক্ত সময়’। আরও দেরি করলে শরৎ ও শীতকালে করোনাভাইরাস ‘শীতল আবহাওয়ার সুবিধা পেতে পারে’ বলে মন্তব্য করেছেন তিনি।

Mujib Borsho

সর্বশেষ

শীর্ষ সংবাদ:
‘শুধু একটু মুখ ফুটে বলতে হবে’         ‘পরীক্ষা করান, টিকা নিন’         রিপোর্টার্স উইদাউট বর্ডার্সের বিরুদ্ধে ফরাসি আইনজীবীর লিগ্যাল নোটিশ         আইভীর বাড়িতে শামীম ওসমান         সালিশি বৈঠকে চেয়ারম্যানের ওপর অতর্কিত হামলা         গ্রহবধূ এবং স্কুলছাত্রীকে দলবেঁধে ধর্ষণের ঘটনায় গভীর উদ্বেগ         ২৪ ঘণ্টায় আরো ২৫৮ জনের মৃত্যু         'অ্যামনেস্টি ইন্টারন্যাশনালের বক্তব্য উদ্দেশ্যপ্রণোদিত'         ঘর পরিষ্কার করুন নিয়ম মেনে         জিন্স পরায় পিটুনি খেয়ে প্রাণ হারালেন কিশোরী         পাহাড় ধসে ৬ রোহিঙ্গার প্রাণহানি         ‘ভালো কাজে পুরস্কার, খারাপ কাজে শাস্তি’         বজ্রপাতে বাবা-ছেলের মৃত্যু         সব মামলায় জামিনের মেয়াদ বাড়ল         এবার বাংলা টিভি চ্যানেলে সানি লিওন’র কোমড় দোলা         মহারাষ্ট্রে বন্যায় প্রাণহানি বেড়ে ১৯২         কূটনীতিক রেজিনা আহমেদের ক্যারিয়ারের গল্প         ‘লিবিয়া উপকূলে নৌকা ডুবে ৫৭ অভিবাসীর মৃত্যু’         ঋতাভরীর বিয়ে আগামী বছর, বন্ধু হবেন বর