বুধবার, ১২ শ্রাবণ ১৪২৮
২৮ জুলাই ২০২১ ঢাকা, বাংলাদেশ
যুক্ত থাকুন

আর্কাইভ
সর্বশেষ

খুলনায় আরো ২২ জনের মৃত্যু

উইমেনআই২৪ প্রতিবেদক: খুলনার চার হাসপাতালে করোনা ও উপসর্গে আরো ২২ জনের মৃত্যু হয়েছে। গত ২৪ ঘণ্টায় নগরীর চারটি হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় তাদের মৃত্যু হয়। এরমধ্যে খুলনা ডেডিকেটেড করোনা হাসপাতালে ৯ জন, বেসরকারি গাজী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ৮ জন, জেনারেল হাসপাতালের করোনা ইউনিটে ২ জন ও শেখ আবু নাসের বিশেষায়িত হাসপাতালে তিনজনের মৃত্যু হয়েছে।

এর আগে বুধবার (৭ জুলাই) ২২জন, গত ৬ ও ৫ জুলাই ১৭জন, ৪ জুলাই ১৫জন, ৩ ও ২ জুলাই ১১জন এবং ১ জুলাই ১০ জনের মৃত্যু হয়েছিল।

খুলনা ডেডিকেটেড করোনা হাসপাতালের ফোকালপার্সন ডা. সুহাস রঞ্জন হালদার জানান, হাসপাতালে গত ২৪ ঘণ্টায় ৯ জনের মৃত্যু হয়েছে। বর্তমানে হাসপাতালটিতে চিকিৎসাধীন রয়েছেন ১৯৩ জন। যার মধ্যে রেড জোনে ১২৯ জন, ইয়োলো জোনে ২৫ জন, আইসিইউতে ১৯ জন। এছাড়া গত ২৪ ঘণ্টায় ভর্তি হয়েছেন ৩২ জন ও সুস্থ হয়ে বাড়ি ফিরেছেন ৫১ জন।

খুলনা শহীদ শেখ আবু নাসের বিশেষায়িত হাসপাতালের করোনা ইউনিটে ৩ জনের মৃত্যু হয়েছে। মৃত ব্যক্তিরা হলেন, খুলনা ডুমুরিয়া উপজেলার আবুল বাশার মোল্লা (৪৬), বটিয়াঘাটা উপজেলার রিজিয়া বেগম (৬৫) ও ঝিনাইদহ জেলার কালিগঞ্জ উপজেলার সিরাজুল ইসলাম (৬৫)। এছাড়া হাসপাতালের করোনা ইউনিটে ৪৫ শয্যার বিপরীতে চিকিৎসাধীন রয়েছেন ৪৩জন। তার মধ্যে আইসিইউতে রয়েছেন ১০ জন। এছাড়া গত ২৪ঘণ্টায় ভর্তি হয়েছেন ৪জন ও সুস্থ হয়ে বাড়ি ফিরেছেন একজন।

খুলনা জেনারেল হাসপাতালের ৮০ শয্যার করোনা ইউনিটের মুখপাত্র ডা. কাজী আবু রাশেদ জানান, গত ২৪ ঘণ্টায় হাসপাতালে দুইজনের মৃত্যু হয়েছে। মৃত ব্যক্তিরা হলেন, খুলনার রূপসা উপজেলার বাগমারার গ্রামের আনসার শেখ (৬০) ও দিঘলিয়া উপজেলার উত্তর চন্দনীমহল গ্রামের আমেনা বেগম (৮০)। বর্তমানে চিকিৎসাধীন রয়েছেন ৬৮ জন। এরমধ্যে ৩৩জন পুরুষ ও ৩৫ জন মহিলা। এছাড়া গত ২৪ ঘণ্টায় ভর্তি হয়েছেন ১৮ জন ও সুস্থ হয়ে বাড়ি ফিরেছেন ১৩জন।

বেসরকারি গাজী মেডিকেল হাসপাতালের ব্যবস্থাপনা পরিচালক (এমডি) ডা. গাজী মিজানুর রহমান জানান, গত ২৪ ঘণ্টায় হাসপাতালের করোনা ইউনিটে চিকিৎসাধীন অবস্থায় ৮ জনের মৃত্যু হয়েছে। মৃত ব্যক্তিরা হলেন, খুলনা মহানগরীর টুটপাড়ার আব্দুল কাদের (৬১) ও রূপসা উপজেলার শামিমা আক্তার (৫০), বাগেরহাট জেলার ফকিরহাট উপজেলার সুভাস দত্ত (৬১), যশোর সদর উপজেলার সুজনপুর গ্রামের নূরজাহান (৭৫) ও যশোর সদরের বেজপাড়ার দুলাল চন্দ্র ঘোষ (৬৫), নড়াইল জেলার কালিয়া উপজেলার বাঁকা গ্রামের নাসিমা বেগম (৫৬), চুয়াডাঙ্গা জেলার দামুড়হুদা উপজেলার দর্শনা বাজারের আব্দুর রশিদ (৪৫) ও পিরোজপুর জেলার নাজিরপুর উপজেলার সাকিনা বেগম (৬৫)।

বর্তমানে এ হাসপাতালের চিকিৎসাধীন রয়েছেন আরো ১২৪ জন। এরমধ্যে আইসিইউতে রয়েছেন ৯ জন ও এইচডিইউতে আছেন ১১ জন। এছাড়া গত ২৪ ঘণ্টায় ভর্তি হয়েছেন ২১ জন ও সুস্থ হয়ে বাড়ি ফিরেছেন ২০ জন। পিসিআর ল্যাবে ৬২টি নমুনা পরীক্ষায় ৪৪ জনের করোনা পজিটিভ শনাক্ত হয়েছে।

Mujib Borsho

সর্বশেষ

শীর্ষ সংবাদ:
‘শুধু একটু মুখ ফুটে বলতে হবে’         ‘পরীক্ষা করান, টিকা নিন’         রিপোর্টার্স উইদাউট বর্ডার্সের বিরুদ্ধে ফরাসি আইনজীবীর লিগ্যাল নোটিশ         আইভীর বাড়িতে শামীম ওসমান         সালিশি বৈঠকে চেয়ারম্যানের ওপর অতর্কিত হামলা         গ্রহবধূ এবং স্কুলছাত্রীকে দলবেঁধে ধর্ষণের ঘটনায় গভীর উদ্বেগ         ২৪ ঘণ্টায় আরো ২৫৮ জনের মৃত্যু         'অ্যামনেস্টি ইন্টারন্যাশনালের বক্তব্য উদ্দেশ্যপ্রণোদিত'         ঘর পরিষ্কার করুন নিয়ম মেনে         জিন্স পরায় পিটুনি খেয়ে প্রাণ হারালেন কিশোরী         পাহাড় ধসে ৬ রোহিঙ্গার প্রাণহানি         ‘ভালো কাজে পুরস্কার, খারাপ কাজে শাস্তি’         বজ্রপাতে বাবা-ছেলের মৃত্যু         সব মামলায় জামিনের মেয়াদ বাড়ল         এবার বাংলা টিভি চ্যানেলে সানি লিওন’র কোমড় দোলা         মহারাষ্ট্রে বন্যায় প্রাণহানি বেড়ে ১৯২         কূটনীতিক রেজিনা আহমেদের ক্যারিয়ারের গল্প         ‘লিবিয়া উপকূলে নৌকা ডুবে ৫৭ অভিবাসীর মৃত্যু’         ঋতাভরীর বিয়ে আগামী বছর, বন্ধু হবেন বর