সোমবার, ৭ আষাঢ় ১৪২৮
২১ জুন ২০২১ ঢাকা, বাংলাদেশ
যুক্ত থাকুন

আর্কাইভ
সর্বশেষ

গণমাধ্যমের স্বাধীনতা বিষয়ে মতবিনিময় সভা

উইমেনআই২৪ প্রতিবেদক: নারী ও কন্যা নির্যাতন এবং সামাজিক অনাচার প্রতিরোধ জাতীয় কমিটির উদ্যোগে ‘সংবিধান, গণমাধ্যমের স্বাধীনতা ও সাংবাদিক রোজিনা ইসলামের নিগ্রহ’ বিষয়ে মতবিনিময় সভা অনুষ্ঠিত হয়েছে।

মঙ্গলবার ভার্চুয়ালি এ মতবিনিময় সভা অনুষ্ঠিত হয়। সভায় মডারেটরের দায়িত্ব পালন করেন  নারী ও কন্যা নির্যাতন এবং সামাজিক অনাচার প্রতিরোধ জাতীয় কমিটির চেয়ারপারসন ব্যারিস্টার এম. আমীর-উল ইসলাম।

লিখিত বক্তব্য উপস্থাপন করেন জাতীয় কমিটির সদস্য ও বাংলাদেশ মহিলা পরিষদের  কেন্দ্রীয় কমিটির সহ-সাধারণ সম্পাদক অ্যাড. মাসুদা রেহানা বেগম। মতবিনিময় সভায় আরো বক্তব্য রাখেন নারী ও কন্যা নির্যাতন এবং সামাজিক অনাচার প্রতিরোধ জাতীয় কমিটির আহ্বায়ক  ও বাংলাদেশ মহিলা পরিষদের সভাপতি ডা. ফওজিয়া মোসলেম, জাতীয় কমিটির সম্মানিত সদস্য বিচারপতি নিজামুল হক নাসিম, মানবাধিকার কর্মী অ্যাড. সুলতানা কামাল, মানবাধিকার কমিশনের সাবেক চেয়ারম্যান কাজী রিয়াজুল হক, সাংবাদিক অজয় দাশগুপ্ত, জাতীয় প্রেসক্লাবের সভাপতি ফরিদা ইয়াসমিন, সাংবাদিক বাসুদেব ধর, অধ্যাপক ড. শাহনাজ হুদা, অধ্যাপক তাসলিমা ইয়াসমিন, আদিবাসী নেতা সঞ্জীব দ্রং, রাষ্ট্র বিজ্ঞানী ড. রওনক জাহান, ডা. রশিদ-ই -মাহবুবসহ  জাতীয় কমিটির অন্যান্য সদস্যবৃন্দ।

সভায় ডা. ফওজিয়া মোসলেম বলেন, 'সমাজে সামাজিক ন্যায়বিচার না থাকলে মানবাধিকার লংঘনের ঘটনা ঘটতে থাকে। সাংবাদিক রোজিনার প্রতি সংঘটিত ঘটনাটিও তেমন। আমাদের আন্দোলনের দুই ধরনের ধারাকে দেখতে হবে। এ ধরনের ঘটনা বন্ধে দীর্ঘমেয়াদী আন্দোলন চালিয়ে যেতে হবে। ঘটনার প্রতিহত করতে দীর্ঘমেয়াদী আন্দোলন চালিয়ে যেতে হবে। আমরা ন্যায়বিচারহীন প্রতিহিংসামূলক একটি সমাজ দেখছি।' আইনের সুশাসন প্রতিষ্ঠা করতে, ন্যায়বিচারের উপযোগী সমাজ গড়ে তুলতে সামাজিক প্রতিরোধ কমিটিসহ সকলকে ঐক্যবদ্ধভাবে কাজ করতে আহ্বান জানান তিনি।

জাতীয় কমিটির সদস্য বিচারপতি নিজামুল হক নাসিম বলেন, 'মহিলা পরিষদের প্রতি শ্রদ্ধা আজীবন ধারণ করি। প্রথম আলোয় ৩০ মে প্রকাশিত বিচারপতি আব্দুল মতিন স্যারের লেখা সর্বত্র প্রচার করার অনুরোধ জানান তিনি। উনার লেখা আজকের সভায় উপস্থাপন করা হলো এরপর আর কিছু বলার থাকে না। এটা নারী-পুরুষের প্রশ্ন নয় বরং মানুষের অধিকারের প্রশ্ন, সত্য জানার প্রশ্ন।'

জাতীয় মানবাধিকার কমিশনের সাবেক চেয়ারম্যান কাজী রিয়াজুল হক বলেন, 'আমরা আমাদের সংবিধানকে ভুলে গেছি, স্বাধীনতার ঘোষণাপত্রকে ভুলে গেছি। আইনের সঠিক প্রয়োগ নিয়ে কিভাবে সামনে এগিয়ে যাওয়া যায় সে লক্ষ্যে কাজ করতে হবে।' সাংবাদিকদের মর্যাদা যাতে ক্ষুন্ন না হয় তারজন্য আইন প্রণয়নে কাজ করতে আহ্বান জানান তিনি।'

মানবাধিকার কর্মী অ্যাড. সুলতানা কামাল বলেন, 'এ দেশের মালিক জনগণ। দুর্নীতিমুক্ত জীবন যাপনের অধিকার তাদের আছে। একজন সাংবাদিককে হেনস্তা কোনভাবেই গ্রহণয়োগ্য নয়। সংবিধানে বর্ণিত সামাজিক ন্যায়বিচার নিশ্চিত করতে হবে।'

জাতীয় প্রেসক্লাবের সভাপতি ফরিদা ইয়াসমিন বলেন, 'তথ্য চুরির অপবাদ দিয়ে, তল্লাশির নামে একজন সাংবাদিককে হেনস্তা করা হয়েছে। সাংবাদিকদের সুরক্ষা আইন করতে হবে। সংবাদ মাধ্যমে স্বাধীনতা না থাকলে গণতন্ত্র, রাষ্ট্র এগোতে পারে না।'

রাষ্ট্র বিজ্ঞানী ড. রওনক জাহান বলেন, 'সাংবাদিক রোজিনা অনেক অনুসন্ধানী প্রতিবেদন করেছেন। তার বিরুদ্ধে তথ্য চুরির অভিযোগ আনা হয়েছে। যে আইনে মামলা হয়েছে তা সংবিধানের সাথে সাংঘর্ষিক হলে এটা কিভাবে হয়?'

সভায় বক্তারা বলেন, সাংবাদিক রোজিনা ইসলামের প্রকাশিত খবরগুলো অত্যন্ত বস্তুনিষ্ঠ। রোজিনা ইসলামকে ঝুঁকি নিয়ে কাজ করার জন্য ধন্যবাদ জানিয়ে তারা বলেন তার কাজটা অত্যন্ত প্রশংসার দাবি রাখে। হঠাৎ তার হেনস্তার খবর আমাদের হতবাক করে। যারা দেশের জন্য ভালো কাজ করে তাকে সরকার পুরস্কৃত না করে কেন হেনস্তা করল এনিয়ে প্রশ্ন তোলেন। তারা আরো প্রশ্ন তোলেন কেন সচিবালয়ের কর্মকর্তারা  আইন নিজের হাতে তুলে নিল?'

সংবিধানের সাথে সাংঘর্ষিক আইনগুলো রদ করতে করণীয় সম্পর্কে বলেন, 'রাষ্ট্র পরিচালকরা দুর্নীতিতে শুন্য সহনশীলতার কথা বললেও বাস্তবে ভিন্ন চিত্র দেখা যাচ্ছে। দুর্নীতি প্রতিরোধেএদেশের জনগণের দায় আছে, সংবিধান অনুযায়ী প্রত্যেকে কাজ করতে পারে। এখানে বাংলাদেশ এক লজ্জাজনক অবস্থায় আছে। আমাদের রাষ্ট্র এখনো নাগরিকের রাষ্ট্র হতে পারেনি।'

সভার মডারেটর নারী ও কন্যা নির্যাতন এবং সামাজিক অনাচার প্রতিরোধ জাতীয় কমিটির চেয়ারপারসন ব্যারিস্টার এম. আমীর উল ইসলাম বলেন, ‘বৃটিশ শাসনামলে প্রণীত অফিসিয়াল সিক্রেটস অ্যাক্ট, ১৯২৩ অনেক পুরাতন আইন। ৩৯-২ এর কথাগুলো ন্যায়সঙ্গত কী-না তা বিচার করবে আদালত। অনুচ্ছেদ ৩৯ কে বুঝতে হলে আমাদের বাকস্বাধীনতাকে বুঝতে হবে।আইনজীবীদের নিয়ে লিগ্যাল ডিফেন্স টিম করা প্রয়োজন।’

লিখিত বক্তব্যে অ্যাড. মাসুদা রেহানা বেগম বলেন, 'মহান মুক্তিযুদ্ধের মাধ্যমে বাংলাদেশ স্বাধীন হওয়ার পর গণপরিষদের প্রথম অধিবেশনে জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের নেতৃত্বে ১৯৭২ সালের ৪ঠা নভেম্বর গৃহীত সংবিধানের তৃতীয় ভাগে বর্ণিত হয়েছে "মৌলিক অধিকার "। যার প্রথম অনুচ্ছেদ অর্থাৎ অনুচ্ছেদ -২৬(১) এ বলা হয়েছে- এই ভাগের বিধানাবলীর সহিত অসামঞ্জস সকল প্রকাশিত আইন যতখানি অসামঞ্জস্যপূর্ণ,এই সংবিধান প্রবর্তন হইতে বাতিল হইয়া যাইবে। গণমাধ্যম রাষ্ট্রের চতুর্থ স্তম্ভ। গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশের সংবিধানের অনুচ্ছেদ -৩৯ এ গণমাধ্যম ও সাংবাদিকদের দায়িত্ব পালনে স্বাধীনতার নিশ্চয়তা প্রদান করা হয়েছে। সম্প্রতি সাংবাদিক রোজিনা ইসলামের বিরুদ্ধে বৃটিশ শাসনামলে প্রণীত অফিসিয়াল সিক্রেটস অ্যাক্ট,১৯২৩ এর অধীনে মামলা দায়ের হয়েছে। রাষ্ট্রকে গণমাধ্যম ও সাংবাদিকদের স্বাধীনভাবে, নির্ভয়ে দায়িত্ব পালনের পরিবেশ নিশ্চিত করতে হবে।'

অনলাইন মতবিনিময় সভায় জাতীয় কমিটির সদস্য বাংলাদেশ সুপ্রিম কোর্টের আইনজীবী অ্যাড. এসএমএ সবুর, ডাকসুর সাবেক জিএস মাহবুব জামান, বিশিষ্ট চিকিৎসক অধ্যাপক ডা. লতিফা শামসুদ্দিন, ড. সানজীদা আখতার, জাতীয় কমিটির সদস্য ও বাংলাদেশ মহিলা পরিষদের কেন্দ্রীয় কমিটির সহ-সভাপতি রেখা চৌধুরী, সাধারণ সম্পাদক মালেকা বানু, যুগ্ম-সাধারণ সম্পাদক সীমা মোসলেম, লিগ্যাল এইড সম্পাদক সাহানা কবির, অর্থ সম্পাদক দিল আফরোজ বেগম, প্রশিক্ষণ-গবেষণা ও পাঠাগার সম্পাদক রীনা আহমেদ, আন্তর্জাতিক সম্পাদক রেখা সাহা, রোকেয়া সদন সম্পাদক নাসরিন মনসুর, বিভিন্ন প্রিন্ট ও ইলেকট্রনিক মিডিয়ার সাংবাদিকবৃন্দ এবং সংগঠনের কর্মকর্তা উপস্থিত ছিলেন। 

সভা সঞ্চালনা করেন সংগঠনের লিগ্যাল এ্যডভোকেসি ও লবি পরিচালক অ্যাড. মাকছুদা আখতার লাইলী।

Mujib Borsho

সর্বশেষ

শীর্ষ সংবাদ:
ধানমন্ত্রীকে কটূক্তি: টাঙ্গাইল পৌর প্যানেল মেয়রের পদ স্থগিত         বেজা’র নির্বাহী চেয়ারম্যান হলেন শেখ ইউসুফ হারুন         স্মার্ট ফোন কিনে না দেওয়ায় তরুণের আত্মহত্যা         যেভাবে ঘুমালে ত্বকের সৌন্দর্য্য বাড়ে!         ভোটগ্রহণ ভালো হয়েছে: ইসি সচিব         সাংবাদিক নির্যাতন দিবসে অবিলম্বে তদন্ত রিপোর্ট প্রকাশের দাবি         হাতকড়ায় বাঁধা দম্পত্তির ভালোবাসার গল্প         ‘তার কাছে বেগম জিয়ার চেয়েও চিত্রনায়িকা গুরুত্বপূর্ণ’         দেশের আরো ৭ জেলায় লকডাউন         ‘নারী কাউন্সিলরের ক্ষেত্রে ‘সংরক্ষিত’ কথাটি বাদ দিতে হবে’         বাংলাদেশ ব্যাংকের রিজার্ভ চুরির রহস্য ফাঁস         দেশে বৈদেশিক বিনিয়োগ কমেছে প্রায় ১১ শতাংশ         শেখ হাসিনাকে হত্যাচেষ্টা মামলায় দণ্ডপ্রাপ্তদের জামিন স্থগিতই থাকছে         পুকুরে ডুবে কিশোরের প্রাণহানি         পরীমণির বিরুদ্ধে আবারো ভাঙচুরের অভিযোগ         ভালুকায় কাভার্ড ভ্যানের চাপায় প্রাণহানি ৩         মালয়েশিয়ায় আটক ১০২ বাংলাদেশি         চরফ্যাশনে ইউপি নির্বাচনকে কেন্দ্র করে প্রাণহানি ১         যুক্তরাষ্ট্রে সড়ক দুর্ঘটনায় ৯ শিশুসহ প্রাণহানি ১০         উন্নত দেশে অভিবাসন শুধুই কী প্রশান্তির!         যুক্তরাষ্ট্রের সঙ্গে কানাডা ও মেক্সিকো সীমান্ত বন্ধের মেয়াদ বাড়লো