রবিবার, ২৫ বৈশাখ ১৪২৮
০৯ মে ২০২১ ঢাকা, বাংলাদেশ
যুক্ত থাকুন

আর্কাইভ
সর্বশেষ

মজুরি বৈষম্যের শিকার লালমনিরহাটের নারীরা!

হাসানুজ্জামান হাসান: “বিশ্বে যা-কিছু মহান সৃষ্টি চির-কল্যাণকর অর্ধেক তার করিয়াছে নারী, অর্ধেক তার নর।”

গ্রামীণ জনপদে নারীরা এখন আর ঘরে বসে নেই। উপার্জন বাড়িয়ে সংসারে স্বচ্ছলতা ফেরাতে পুরুষের পাশাপাশি ক্ষেত খামারে শ্রম বিক্রি করছেন তারা। লালমনিরহাটে পুরুষদের মতো নারীদের ক্ষেত-খামারে কাজ করার তেমন একটা রেওয়াজ ছিল না।

কিন্তু বর্তমানে দুর্মূল্যের বাজারে শুধু পুরুষদের পরিশ্রমে সংসার চালানো কঠিন হয়ে পড়েছে। এ কারণে সংসারের স্বচ্ছলতা ফেরাতে পুরুষদের পাশাপশি নারীরাও ক্ষেত-খামার ও চাতালে শ্রমিক হিসেবে কাজ করছেন। তবে নারীরা সমপরিমাণ পরিশ্রম করলেও পুরুষের তুলনায় মজুরি পাচ্ছেন কম।

কালীগঞ্জ উপজেলার কাকিনা গ্রামে ধান ক্ষেত নিড়ানি কাজের পাশাপাশি তামাকের কাজ করছেন জহিরন বেগম ও শান্তি বালা। তারা ক্ষোভ প্রকাশ করে বলেন, ‘বাহে দলবেঁধে গ্রামের ক্ষেত-খামারে কাজ করি। এ অঞ্চলের নিয়ম অনুযায়ী সকাল সাড়ে ৭টা থেকে বিকেল ৫টা পর্যন্ত গৃহস্থের (জমি মালিক) জমিতে নানা ধরনের কৃষি কাজ করতে হয়। গৃহস্থরা আমাদের মজুরি দেয় মাত্র ২০০ টাকা। অথচ একই কাজে পুরুষ শ্রমিকদের দেয়া হয় ৩০০ থেকে ৪০০ টাকা।

পাটগ্রাম উপজেলায়ও সহস্রাধিক নারী শ্রমিক রয়েছেন। তারা পাথর ভাঙার মতো কঠিন কাজে নিয়োজিত। কিন্তু পুরুষের তুলনায় প্রতিনিয়ত মজুরি বৈষম্যের শিকার হচ্ছেন তারা। কথা হয় পাথর শ্রমিক মফিজন বেওয়া ও মরিয়ম বেওয়ার সঙ্গে। তারা বলেন, ‘পুরুষের পাশে বসে সমান কাজ করি। কিন্তু সমপরিমাণ কাজ করেও পুরুষের সমান মজুরি পাই না। নারীরা প্রতিটি ক্ষেত্রে তাদের ন্যায্য অধিকার থেকে বঞ্চিত হচ্ছে।’

নারী-পুরুষের মধ্যে মজুরি বৈষম্যের কথা স্বীকার করে কালীগঞ্জ উপজেলার কাকিনা ইউনিয়নের কৃষক মনছুর মিয়া বলেন, ‘নারীরা পুরুষের সমান কাজ করে সেটি সঠিক। কিন্তু পূর্ব থেকে বাজার যেভাবে চলে আসছে ঠিক সেভাবে দেওয়া হচ্ছে মজুরি। হঠাৎ করে তো বাড়ানো যাবে না’।

কালীগঞ্জ উপজেলা মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান নাজনীন রহমান জানান, নারীরা প্রতিটি ক্ষেত্রে মজুরি বৈষম্যের শিকার হচ্ছেন। বন্ধ হোক নারীর প্রতি অবিচার এবং সমাজের প্রত্যেকটি নারী পাক তার যথার্থ সম্মান, অর্জিত হোক নারী অধিকার। কর্মক্ষেত্রে কিংবা নিজ ঘরে রয়েছে তাদের অবদান। নারীরা পুরুষের সমান কাজ করেও ন্যায্য মজুরি থেকে বঞ্চিত হচ্ছেন।

প্রয়োজনীয় নিরাপত্তা ও কাজের ন্যায্য মজুরি নিশ্চিত করতে পারলে পুরুষের মতো তারাও কৃষিক্ষেত্রসহ সমাজের নানা কাজে ব্যাপক ভূমিকা রাখেতে পারবে। তাতে একদিকে বেকার সমস্যার সমাধান হবে অপরদিকে নারী পুরুষ মিলে দেশকে উন্নতির দিকে এগিয়ে নেয়া সহজ হবে।

 

Mujib Borsho

সর্বশেষ

শীর্ষ সংবাদ:
খালেদার আবেদনের ব্যাপারে যা জানালেন আইনমন্ত্রী         গবেষণায় করোনাকালীন নারীদের নানা প্রতিকূলতা         যেই ক্ষোভে তানিশাকে হত্যা করলো চাচাতো ভাই         কাবুলের স্কুলে বিস্ফোরণে প্রাণহানি ৪০         সহসাই খুলছে না বাংলাদেশ-ভারত সীমান্ত         টিকার দাম কমাতে রাশিয়াকে চিঠি         তোফায়েল আহমেদ সম্পূর্ণ সুস্থ আছেন         খালেদার বিদেশের ব্যাপারে যা বললেন তথ্যমন্ত্রী         এসএসসির ফরম পূরণের তারিখ ঘোষণা         বাংলাদেশিদের মালয়েশিয়া প্রবেশে নিষেধাজ্ঞা         উদ্যানের বিষয়ে যা বললেন কাদের         শিমুলিয়া থেকে ছাড়ল ফেরি         গার্মেন্টস শ্রমিকদের বিক্ষোভ         কানাডায় কোভিড ভ্যারিয়েন্ট বাড়ছে         খালেদার ব্যাপারে সিদ্ধান্ত আজ         হাসপাতালে ভর্তি তোফায়েল আহমেদ         ইতালিতে করোনায় চার বাংলাদেশির মৃত্যু         জনকণ্ঠের চাকরিচ্যুতদের পুনর্বহালের দাবি বিএফইউজে‘র         নির্মল বন্ধুত্ব চাই!         শনিবার থেকে ফেরি চলাচল বন্ধ