মঙ্গলবার, ৪ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৮
১৮ মে ২০২১ ঢাকা, বাংলাদেশ
যুক্ত থাকুন

আর্কাইভ
সর্বশেষ

‘একজন ডজন লোককে নিয়ে মরতে চায়’

মিলি সুলতানা: ‘দেশে করোনার তাণ্ডব চলছে। মৃত্যুর চাকা দ্রুতগামী হয়ে গেছে। প্রতিদিন কোনো না কোনো পরিচিতের মৃত্যুর খবর শুনতে হচ্ছে। প্রিয়জনের প্রস্থানে হাহাকার বাড়ছে। করোনা সম্পর্কে মানুষের চরম অজ্ঞতা অসচেতনতার নির্মম পরিণতি দেখে বেদনাক্লিষ্ট মন।’

‘সোশাল ডিসট্যান্স বলে শব্দটা বাংলাদেশিদের জন্য নয়ই নয়। মানুষের অজ্ঞতার উচ্চমূল্য দিতে হচ্ছে বেশুমার প্রাণের বিনিময়ে। পাবলিকের স্বভাব খারাপ, তারা লকডাউন মানেনা। হুড়মুড়িয়ে মার্কেটে ঢুকে ঈদের বাজার করে। কাণ্ডজ্ঞানহীন মানুষ দলবেঁধে হোটেল রেস্টুরেন্টে খায়। কম্যুনিটি সেন্টারে হোটেলে জমজমাট বিয়ে ও জন্মদিনের পার্টি করে। একজন তো মরতে চায়না, সে চায় ডজন ডজন লোককে সাথে নিয়ে মরতে। কদিন আগে মৌসুমি ওমর সানি চরম দায়িত্বহীনতার পরিচয় দিয়েছেন তাদের ছেলে ফারদিন এহসানের দ্বিতীয় বিয়ের আয়োজন করে। এদের কাছ থেকে কিছু কি শেখার আছে?? অভিনেত্রী মৌসুমি তার ছেলেমেয়ে পুত্রবধূ করোনায় ধরাশায়ী হয়েছেন। বিয়েতে যারা অতিথি হয়ে এসেছিলেন তারাও আক্রান্ত হয়েছেন। এতটা মূর্খতার পরিচয় মৌসুমির কাছ থেকে তার শুভাকাঙ্ক্ষীরা আশা করেনি। ওমর সানি এখন ফলফ্রুটের ছবি শেয়ার করে কাউকে প্রাণঢালা কৃতজ্ঞতা জানাচ্ছেন। কিন্তু ওমর সানি তার নিজের প্রাণঢালা গাফিলতি রিয়েলাইজ করতে পারছেন কি?? কবরী আছেন আইসিইউতে। গাজি রাকায়েতের অবস্থাও খারাপ। এরা নিশ্চয়ই সোশাল গ্যাদারিং থেকে পজিটিভ হয়েছেন। মিডিয়া ব্যক্তিদের গাফিলতি আজ তাদেরকে এই পরিণতির দিকে টেনে এনেছে। আম জনতার কথা না-হয় উহ্য রাখলাম।’

‘এবার আসি বইমেলা প্রসঙ্গে। বই বেচাকেনার চরম মন্দার ফলে প্রকাশকদের অনেকে আহাজারি করছেন। ভুল হয়েছিল শুরুতেই। এই মহা দুর্যোগকালে বইমেলার অ্যাপ্রুভাল দেয়াই অনুচিত কাজ হয়েছে। বাংলা অ্যাকাডেমি কিভাবে নজিরবিহীন দায়িত্বহীনতার পরিচয় দিতে পারলো?? করোনার অতিমারীতে বই বিক্রির স্বপ্ন প্রকাশকরা কিভাবে দেখেন? তাদের কি বিবেক বলে কিছু নেই? এবারের বইমেলায় চরম লস হয়েছে তাদের, কয়েকজন প্রকাশকের শোকার্ত গলা শুনে মনে হল, তারা চাচ্ছেন মানুষ দলে দলে বইমেলায় যাক। বই কিনুক আর কবরে গিয়ে সেই বই পড়ে কুদরতি রিভিউ পাঠাক !!!’

‘দেশের প্রকাশক ও বই বিক্রেতারা রীতিমতো কর্মাশিয়াল মাইন্ডের হয়ে গেছেন। এখানে সরকারেরও ভুল আছে। এবার বইমেলা করতে দেয়াই ঠিক হয়নি। অনেক প্রকাশক চাচ্ছেন সরকারী প্রণোদনা। তারা চাচ্ছেন সরকার তাদের সব বই কিনে তাদেরকে লাভবান করুক। অতীতে যাদেরকে সৃজনশীল প্রকাশক বলা হত এখন তারা আপাদমস্তক ব্যবসায়ী। প্রকাশকদের দায়িত্বহীনতার নজীর দেখে জাতি মুগ্ধ।’

Mujib Borsho

সর্বশেষ

শীর্ষ সংবাদ:
সাংবাদিক হেনস্থা করায় দেশের ভাবমূর্তি ক্ষুণ্ণ হয়েছে         স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ের রিপোর্ট করায় আমার সাথে অন্যায় হচ্ছে : রোজিনা         রিমান্ড নাকচ, সাংবাদিক রোজিনাকে কারাগারে পাঠানোর নির্দেশ         স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ের ব্রিফিং বয়কটের ঘোষণা সাংবাদিকদের         রোজিনা ইসলামকে ৫ দিনের রিমান্ডে চায় পুলিশ         সাংবাদিক রোজিনা ইসলামকে নেওয়া হলো আদালতে         একজন সাংবাদিকের প্রথম কাজ সত্য খুঁজে বের করা         রোজিনাকে সচিবালয়ে আটকে রেখে মারধর         প্রথম আলোর সাংবাদিক রোজিনা ইসলামের বিরুদ্ধে মামলা         রোজিনা ছিঁচকে চোর না, সে এদেশের সবচেয়ে নন্দিত সাংবাদিক         আমার বিরুদ্ধেও মামলা দেন         সাংবাদিক রোজিনা ইসলামের সুচিকিৎসা দিয়ে দায়িত্ব পালনে ফিরে যেতে দেওয়া হোক         পাঁচ ঘণ্টা আটকে রেখে থানায় নেওয়া হলো প্রথম আলোর রোজিনা ইসলামকে         প্রথম আলোর রিপোর্টারকে সচিবালয়ে স্বাস্থ্য সেবা বিভাগে আটকে হেনস্থা করা হয়েছে         জীবনযুদ্ধে জয়ী আকলিমা চাকরি পেলেন পৌরসভায়         মাথাপিছু আয় এখন ২২২৭ ডলার         সংবাদ মাধ্যমের অফিস লক্ষ্য করে ইসরাইলি হামলার তীব্র নিন্দা জানিয়েছে জাতীয় প্রেস ক্লাব         ভারতফেরত তরুণীকে কো'য়ারেন্টিনে ‘ধ'র্ষণ’, এএসআই গ্রে'প্তার         সেদিন অনেক ঝড় মাথায় নিয়েই দেশে এসেছিলাম: শেখ হাসিনা         ব্যাংক কর্মকর্তারা দুর্নীতি করলে জরিমানা-মামলা         পরিস্থিতি স্বাভাবিক না হওয়া পর্যন্ত বর্ডার বন্ধ