রবিবার, ২৮ চৈত্র ১৪২৭
১১ এপ্রিল ২০২১ ঢাকা, বাংলাদেশ
যুক্ত থাকুন

আর্কাইভ
সর্বশেষ

মোংলা বন্দর চ্যানেলের ইনার বারে ড্রেজিং কাজ শুরু

উইমেনআই২৪ ডেস্ক: মোংলা বন্দরের জেটিতে স্বাভাবিক জোয়ারের সহায়তায় ৯ দশমিক ৫ থেকে ১০ মিটার ড্রাফটের জাহাজ হ্যান্ডেল করার লক্ষ্যে মোংলা বন্দর চ্যানেলের ইনার বারে ড্রেজিং কাজ শুরু হয়েছে।

শনিবার নৌপরিবহন প্রতিমন্ত্রী খালিদ মাহমুদ চৌধুরী মোংলা বন্দরের জয়মনিরগোল পয়েন্টে ড্রেজিং কাজের  উদ্বোধন করেন। এসময় অন্যান্যের মধ্যে খুলনা সিটি কর্পোরেশনের মেয়র তালুকদার আব্দুল খালেক, পরিবেশ, বন ও জলবায়ু বিষয়ক উপমন্ত্রী হাবিবুন নাহার, মন্ত্রণালয়ের সচিব মোহাম্মদ মেজবাহ্ উদ্দিন চৌধুরী, মোংলা বন্দর কর্তৃপক্ষের চেয়ারম্যান রিয়ার এডমিরাল মোহাম্মদ মুসা এবং প্রকল্প পরিচালক শেখ শওকত আলী উপস্থিত ছিলেন ।

ইনার বারে ড্রেজিং প্রকল্পের জন্য ব্যয় হবে ৭৯৪ কোটি টাকা। ২০২২ সালের জুনের মধ্যে ড্রেজিংয়ের কাজ শেষ হবে। ইনার বারে ২১৬ দশমিক শূন্য ৯ লাখ ঘন মিটার ড্রেজিং করা হবে।
চীনের প্রতিষ্ঠান জিয়ানসু হাইহং কন্সট্রাকশন ইঞ্জিনিয়ারিং কোম্পানি লিমিটেড এবং চায়না সিভিল ইঞ্জিনিয়ারিং কন্সট্রাকশন কর্পোরেশন যৌথভাবে ড্রেজিং কাজটি করবে।

প্রতিমন্ত্রী বলেন, ‘২০০৯ সালে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বে সরকার ক্ষমতায় আসার পর বন্দরের কার্গো হ্যান্ডলিং যন্ত্রপাতিসহ অবকাঠামো উন্নয়ন এবং ড্রেজিং করার জন্য নির্দেশনা প্রদান করেন। প্রধানমন্ত্রীর নির্দেশনা অনুসারে বন্দরের বিভিন্ন প্রকার হ্যান্ডলিং ইকুইপমেন্ট সংগ্রহ, অবকাঠামোর উন্নয়ন এবং ড্রেজিং করার জন্য নানাবিধ প্রকল্প গ্রহণ করা হয়। এরই ধারাবাহিকতায় প্রায় ৭০০ কোটি টাকা ব্যয় করে মোংলা বন্দরের আউটার বারে ড্রেজিং করা হয়েছে। আউটার বারে ড্রেজিংয়ের ফলে বন্দরের এ্যাংকোরেজ এলাকা পর্যন্ত ১০ মিটার ড্রাফটের জাহাজ অনায়াসে আসতে পারবে। ইতোমধ্যে ৯ দশমিক ৫ মিটার ড্রাফটের জাহাজ আসা শুরু করেছে। এতে বন্দরে আগত জাহাজের সংখ্যা বৃদ্ধি বন্দরের রাজস্ব আয় বৃদ্ধি পাচ্ছে।’  তিনি বলেন, ‘ইনার বারে ড্রেজিং সমাপ্ত হওয়ার পর বন্দরে আগত জাহাজের টার্ন এ্যারাউন্ড টাইম কমে যাবে, পণ্য পরিবহন খরচ সাশ্রয় হবে। মোংলা বন্দরে জাহাজের সংখ্যা অনেকাংশে বৃদ্ধি পাবে, যা দক্ষিণ-পশ্চিমাঞ্চলের উন্নয়নসহ দেশের অর্থনীতিতে ব্যাপক ভূমিকা রাখবে। মোংলা বন্দর ব‍্যবসা বাণিজ‍্যের ক্ষেত্রে বিরাট ভূমিকা রাখবে। যা বর্তমান সরকারের ২০৪১ সালের মধ্যে উন্নত দেশ গড়ার পরিকল্পনা বাস্তবায়নে সহায়ক হবে।’

খালিদ মাহ্‌মুদ চৌধুরী বলেন, ‘মোংলা বন্দর সম্প্রসারণের জন্য ভারতীয় ঋণের আওতায় প্রায় ৬ হাজার কোটি টাকার প্রকল্প গ্রহণ করা হয়েছে। বাংলাদেশ স্বল্পোন্নত দেশ থেকে উত্তরণের জন‍্য জাতিসংঘের চূড়ান্ত স্বীকৃতি লাভ করেছে; যা অহংকার ও গর্বের। বর্তমানে চট্টগ্রাম বন্দরেও সর্বোচ্চ ৯ দশমিক ৫০ মিটার ড্রাফটের জাহাজ হ্যান্ডেল করা হচ্ছে। সে বিবেচনায় এই ড্রেজিং করা হলে মোংলা বন্দরেও সর্বোচ্চ ৯ দশমিক ৫০ মিটার ড্রাফটের জাহাজ হ্যান্ডেল করা সম্ভব হবে। চট্টগ্রাম বন্দর ও মোংলা বন্দরের ড্রাফটের কোন পার্থক্য থাকবে না এবং মোংলা বন্দর চট্টগ্রাম বন্দরের উপযুক্ত বিকল্প বন্দরে পরিণত হবে ‘

 

Mujib Borsho

সর্বশেষ সংবাদ

শীর্ষ সংবাদ:
তরুণরা বেশি আক্রান্ত হচ্ছেন         সবাইকে কোভিড-১৯ টিকার কোর্স সম্পন্ন করার আহ্বান         জকিগঞ্জে স্কুলছাত্রীকে ধর্ষণের ঘটনায় মহিলা পরিষদের ক্ষোভ         দ্বিতীয় বিশ্বযুদ্ধে ‘মুসলিম নারী গোয়েন্দার’ আত্মত্যাগ         'প্রজাতন্ত্র দিবস' শীর্ষক আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত         রাজধানীর দুই এলাকা সবচেয়ে ঝুঁকিপূর্ণ         পাওয়া গেলো মামুনুলের আরেক ‘জান্নাত’         ‘দুঃখের পরেই সুখ আছে’         ধান খাওয়ায় ৩৩ বাবুই ছানা পুড়িয়ে মারল ক্ষেতের মালিক         বাজার-গণপরিবহনে সর্বোচ্চ ঝুঁকি         ‘শিশু বক্তা’ রফিকুল কাশিমপুর কারাগারে         বইমেলা শেষ হচ্ছে ১২ এপ্রিল         বিএনপিকে করোনা নিয়ে রাজনীতি না করার আহ্বান কাদেরের         কোচবিহারে ভোটকেন্দ্রে গুলিতে নিহত ৫         করোনায় আক্রান্ত আকরাম খান         করোনা থেকে বাঁচতে সতর্কতা ‘কেন’ জরুরি         জাতীয় প্রেস ক্লাবের সাবেক সভাপতি হাসান শাহরিয়ার আর নেই         যুক্তরাষ্ট্রের বিশেষ স্বীকৃতি পাচ্ছেন শেখ হাসিনা         প্রধানমন্ত্রীর উপদেষ্টা তৌফিক-ই-ইলাহী করোনায় আক্রান্ত         প্রিন্স ফিলিপের মৃত্যুতে শোকাহত প্রধানমন্ত্রী         জন কেরিকে ‘অসমাপ্ত আত্মজীবনী’ উপহার দিলেন প্রধানমন্ত্রী