বুধবার, ৩০ চৈত্র ১৪২৭
১৪ এপ্রিল ২০২১ ঢাকা, বাংলাদেশ
যুক্ত থাকুন

আর্কাইভ
সর্বশেষ

'বাংলাদেশে খোন্দকার ইব্রাহীম খালেদের মতো নির্ভীক মানুষের বড্ড প্রয়োজন'

মিহির কান্তি রাউত: “আমি পদত্যাগ করেছি স্বাস্থ্যগত কারণ দেখিয়ে। ওখানকার স্ট্রেসফুল সিচুয়েশনে আমার ভগ্ন স্বাস্থ্য নিয়ে কাজ করা সম্ভব না। সেই সঙ্গে আইএলএফএসএল ( ILFSL) এর ভেতরের অবস্থা সম্পর্কে মাননীয় প্রধান বিচারপতির কাছে প্রতিবেদন দিয়েছি। ব্যাংকিং বা ম্যানেজমেন্ট সমস্যা হলে আমরা আমাদের অভিজ্ঞতা দিয়ে সেটা সারিয়ে তুলতে পারি। যেমন, ২০০০ সালের প্রথম দিকে পূবালী ব্যাংক রুগ্ন  ব্যাংক হয়ে গিয়েছিল। আমি জয়েন করে সেটাকে একটি লাভজনক প্রতিষ্ঠানে পরিণত করেছিলাম। কিন্তু, আইএলএফএসএল সে ধরনের না। এখানকার সমস্যা ব্যাংকিংয়েরও না, ম্যানেজমেন্টেরও না। এখানকার সমস্যা হলো— টাকা লুট করে নেওয়া হয়েছে। এখানে সাড়ে ৩ হাজার কোটি টাকার লোন থেকে ১৬০০ কোটি টাকা লুট করা হয়েছে। এটি করেছে পিকে হালদার নামের এক ব্যক্তি ও তার গ্রুপ। ২০১৫ সালের দিকে আইএলএফএসএল এর চেয়ারম্যান হিসেবে মাহবুব জামিল ছিলেন। তিনি একজন ভালো চেয়ারম্যান ছিলেন। তখন এটি একটি প্রথম সারির অরগানাইজেশন ছিল। পিকে গ্রুপ তাকে সেখান থেকে বের করে দিয়ে সংস্থাটি দখল করে। এর বোর্ড ও ম্যানেজমেন্ট বদলে ফেলে। সেখানে নিজস্ব লোকজন বসায়। তারপর সেখান থেকে ১,৬০০ কোটি টাকা লুট করে নিয়ে যায়। সে (পিকে হালদার) কানাডা চলে গেছে। ধারণা করা হচ্ছে, টাকা কানাডায় পাচার হয়ে গেছে। লুট করা টাকা যদি দেশের বাইরে চলে যায় তাহলে তা ফিরিয়ে আনার দায়িত্ব দুর্নীতি দমন কমিশনের (দুদক)। আমাদের মতো সাধারণ লোকের পক্ষে এটা সম্ভব না। এসব বিষয়ে বাংলাদেশ ব্যাংক হলো রেগুলেটর। আদালত তো রেগুলেটর না। আদালত হয়তো আমাকে দিয়েছিলেন ভালো উদ্দেশ্য নিয়ে। আমি সেখানে ক্ষমতাহীন চেয়ারম্যান ছিলাম। সেজন্যে বাংলাদেশ ব্যাংকের স্টেপিং করা দরকার।'

আমি মনে করি, 'বাংলাদেশ ব্যাংক যদি সেখানে প্রশাসক নিয়োগ করে এবং দুদককে দিয়ে (টাকা লুটের বিষয়ে) তদন্ত করায় তাহলে সেটিই সঠিক পদক্ষেপ হবে। আমি এখানে চেয়ারম্যান হিসেবে ২৫ দিন ছিলাম। এর ভেতরের কথা কেউ আমাকে বলেনি। এটা আমাকে বাংলাদেশ ব্যাংকে গিয়ে আবিষ্কার করতে হয়েছে।”

বিশিষ্ট অর্থনীতিবিদ ও বাংলাদেশ ব্যাংকের সাবেক ডেপুটি গভর্নর খোন্দকার ইব্রাহীম খালেদকে হাইকোর্টের নির্দেশে ইন্টারন্যাশনাল লিজিং অ্যান্ড ফিন্যান্সিয়াল সার্ভিসেস লিমিটেডের (আইএলএফএসএল) চেয়ারম্যান হিসেবে দায়িত্ব দেওয়ার ২৫ দিন পর তিনি স্বাস্থ্যগত কারণ দেখিয়ে চেয়ারম্যানের পদ থেকে পদত্যাগ করেছিলেন। উপরের কথাগুলো তিনি পদত্যাগের পর একটি গণমাধ্যমকে বলেছিলেন। এই হচ্ছেন খন্দকার ইব্রাহীম খালেদ। আজ তিনি আমাদের ছেড়ে চলে গেলেন।

(১)
বাংলাদেশ ব্যাংকের ডেপুটি গভর্নর ছাড়াও বাংলাদেশ কৃষি ব্যাংকের চেয়ারম্যান ও ব্যবস্থাপনা পরিচালক এবং সোনালী, অগ্রণী ও পূবালী ব্যাংকের ব্যবস্থাপনা পরিচালক হিসেবেও দায়িত্ব পালন করেছিলেন তিনি । দেশপ্রেমিক, নীতির প্রশ্নে আপোষহীন, সৎ, নির্ভীক, মেধাবী ও পরিশ্রমী একজন মানুষ। আমি গর্ব করতে পারছি কারণ এই মানুষটির সান্নিধ্য পেয়েছিলাম আমি । আবার মনটা বিষন্নতায় ছেয়ে যাচ্ছে যে তাঁর মতো একজন মেধাবী মানুষকে হারিয়ে ফেললাম আমরা ।

(২)
আমি প্রথম যখন তাঁর সাথে দেখা করি তিনি তখন বাংলাদেশ ব্যাংকের ডেপুটি গভর্নর। সে কারণে তাঁকে ‘স্যার’ সম্বোধন করেছি সব সময়। তারপর খুব কাছে থেকে দেখেছিলাম দুটি বছর- ১৯৯৯-২০০০। তখন তিনি পূবালী ব্যাংকের ম্যানেজিং ডিরেক্টর। সেসময় তিনি যুক্ত ছিলেন শিশু-কিশোর সংগঠন ‘কেন্দ্রীয় কচি-কাঁচার মেলা’র সাথে। প্রতিষ্ঠাতা পরিচালক দাদাভাইয়ের মৃত্যুর পর তিনি হয়েছিলেন মেলার পরিচালক। 
আমি যেহেতু দৈনিক ইত্তেফাকের ছোটদের বিভাগ কচি-কাঁচার আসরের সাথে যুক্ত  ছিলাম, নানা প্রয়োজনে তখন তাঁর সাথে কথা হতো। মিটিং হতো। অনুষ্ঠান সংক্রান্ত পরিকল্পনা হতো । তাঁর পূবালী ব্যাংকের অফিসে গেছি অসংখ্যবার । অসম্ভব ব্যস্ততার ভেতরেও তিনি আমাকে সময় দিয়েছেন। কথা বলেছেন । আজ মনে পড়ছে , সেগুনবাগিচাস্থ কচি-কাঁচার মেলা অফিসে সন্ধ্যার পর কতোবার কতো বিষয়ে কথা হয়েছে । তাঁকে দেখেছি, খুব মেপে মেপে আস্তে আস্তে বিচক্ষণতার সাথে কথা বলতে । রাগ করতে দেখিনি কখনো।পরিপাটি, সজ্জন, পরিষ্কার মানুষ বলতে যা বোঝায় তিনি ছিলেন তাই । অহংবোধ ছিল না , ছিল গাম্ভীর্য। স্বজনপ্রীতি ছিল না , ছিলেন নীতিবান। সৎ ছিলেন বলে অসৎ মানুষগুলো তাঁর পেছনে লাগতো সব সময় । শুনেছি , সোনালী ব্যাংকের এমডি থাকার সময় এমনটাই ঘটেছিল। এমনকী বর্তমান ক্ষমতাসীন দলের একসময়ের প্রভাবশালী ( বর্তমানে অনেকটাই নীরব ) নেতা ও মন্ত্রী তাঁকে চাপে রেখেছিলেন কিন্তু তিনি নীতির প্রশ্নে আপোষ করেননি। একবার তাঁর গাড়িতে পাশে বসে যেতে যেতে সেই মন্ত্রীর প্রভাব খাটানোর কথা শুনেছিলাম তাঁর মুখে ।

(৩)
তাঁর সততা ও দক্ষতা ছিল বলেই পুঁজিবাজারে ধসের পর ২০১০ সালে তাঁকেই দেয়া হয়েছিল তদন্ত করে রিপোর্ট করার দায়িত্ব । তিনি ছিলেন সরকার গঠিত তদন্ত কমিটির প্রধান।

(৪)
ব্যক্তিগত একটি ঘটনা মনে পড়ছে আজ।
১৯৯৮ বা ১৯৯৯ সালে একবার আমি বাংলাদেশ ব্যাংকের সহকারী পরিচালক পদের জন্য আবেদন করেছিলাম। লিখিত পরীক্ষায় উত্তীর্ণ হবার পর ভাইভার আগে দাদাভাই ফোন করে আমাকে পাঠিয়েছিলেন খালেদ স্যারের কাছে। আমি গিয়ে তাঁর সাথে দেখা করি। তিনি আমাকে সরাসরি বলেছিলেন, ‘দাদাভাই তোমার জন্য সুপারিশ করেছেন তবে তোমাকে তোমার যোগ্যতা দিয়েই আসতে হবে। আমি এ বিষয়ে কোন হেল্প করতে পারবো না ।’ তখন আমার মন একটু খারাপ হয়েছিল। তারপর ভাইভাও হলো আমার। বুঝেছিলাম, তিনি সেখানেও বলেননি আমার কথা। আমি আমার মতো ভাইভা দিয়েছিলাম । দুর্ভাগ্য , সেখানে আমার চাকুরীটা হয়নি । তারপর ২০০০ সালে যখন বিসিএস এ নির্বাচিত হলাম , তখন তাঁর পূবালী ব্যাংকের অফিসে দেখা করতে গেলে আমাকে শুধু চা নয়, মিষ্টিসহ আপ্যায়ন করে বেশ কিছু উপদেশ দিয়েছিলেন। তিনি বেশ খুশি হয়েছিলেন । শুধু বলেছিলেন, ‘বাংলাদেশ ব্যাংকের চেয়েও ভালো চাকরি পেয়েছো। একদিন সচিব হবে।’ সেসব কথা আজ খুব মনে পড়ছে ।

(৫)
২০০২ এ আমার বিয়ের অনুষ্ঠানে নিমন্ত্রণ করেছিলাম তাঁকে। তিনি কার্ডটা হাতে নিয়ে দেখে বলেছিলেন, ‘কোন জরুরি কাজ না থাকলে যাবো ।’ তিনি আসতে পারেননি কোন কারণে তবে লোক মারফত আমার জন্য শুভেচ্ছা উপহার পাঠিয়েছিলেন তিনি।

(৬)
খন্দকার ইব্রাহীম খালেদ বর্তমান সরকার দলের প্রিয়ভাজন ব্যক্তি হয়েও নিজ স্বার্থে সরকারকে কাজে লাগাননি কখনো। বরং নীতি মেনে কাজ করতে গিয়ে কারো কারো বিরাগভাজন হয়েছেন। তিনি সত্য কথা বলতেন। পত্রিকার কলামে নীতি, আদর্শ ও বিশ্লষণধর্মী উন্নয়ন ভাবনার কথা লিখতেন। সত্য বলতে ভয় পাননি কখনো। কারণ সততার সাহস ছিল বুকে । আইএলএফএসএল নিয়ে তাঁর বক্তব্য সাহসিকতারই প্রমান দেয়।বাংলাদেশে এখন এমন সৎ, সাহসী , মেধাবী ও নির্ভীক মানুষের বড্ড প্রয়োজন।

Mujib Borsho

সর্বশেষ সংবাদ

শীর্ষ সংবাদ:
আজ পহেলা বৈশাখ         কোন এক বৈসাবিতে         সুস্থ থাকতে সেহরিতে যে সকল খাবার খাওয়া উচিত         শিথিল লকডাউনে যুক্তরাজ্যে উৎসবের আমেজ         ক্রিকেটার সাকিবের সঙ্গে সম্পর্কের কথা স্বীকার করলেন মিথিলা         লকডাউনে ব্যাংকে লেনদেন চার ঘণ্টা         ১০০ জনকে নিয়ে হবে মঙ্গল শোভাযাত্রা         দ্বিতীয় টেস্টে নেগেটিভ হয়ে দেশে ফিরছেন প্রোটিয়া নারীরা         ‘ভুয়া’ ডক্টরেট ডিগ্রি, যা বললেন মমতাজ         চাঁদ দেখা গেছে, কাল রোজা শুরু         ঘরে বসেই বৈশাখের আনন্দ উপভোগ করুন: প্রধানমন্ত্রী         ‘করোনা মহামারী কখন শেষ হবে বলা কঠিন’         আহমদ শফীর মৃত্যু নিয়ে পিবিআইয়ের রিপোর্ট সম্পূর্ণ মিথ্যা: বাবুনগরী         যুক্তরাষ্ট্রে জনসনের টিকা ব্যবহারে স্থগিতাদেশ         সেই ‘জান্নাতী’ এখন মেডিকেল শিক্ষার্থী         ‘বিএনপি মিথ্যাচারকে রাজনীতি মনে করছে’         বিশেষ প্রয়োজনে ব্যাংক চালু রাখতে গভর্নরকে চিঠি         প্রথম ঘণ্টায় জমা সোয়া লাখ মুভমেন্ট পাস         রয়টার্সের ১৭০ বছরে প্রথম নারী প্রধান সম্পাদক         হেফাজতের নায়েবে আমিরের পদত্যাগ