বৃহস্পতিবার, ১৩ ফাল্গুন ১৪২৭
২৫ ফেব্রুয়ারী ২০২১ ঢাকা, বাংলাদেশ
যুক্ত থাকুন

আর্কাইভ
সর্বশেষ

স্ত্রীর সঙ্গে সংসার করার শর্তে ৫৪ জনকে মামলা থেকে অব্যাহতি

উইমেনআই২৪ ডেস্ক: স্বামী-স্ত্রীদের মধ্যে কলহ ও যৌতুকসহ বিভিন্ন নির্যাতনের ৬৫ টি মামলায় ৫৪ জনকে স্ত্রীদের নিয়ে সংসার করার নির্দেশনা দিয়ে মামলা থেকে অব্যাহতি দিয়েছেন আদালত। অন্যদিকে একই অভিযোগে আরও ১১টি মামলায় ১১ জনকে দেড় বছর কারাদণ্ড দিয়েছেন আদালত।

সোমবার দুপুরে এ রায় দেন সুনামগঞ্জ নারী ও শিশু নির্যাতন দমন ট্রাইব্যুনালের বিচারক মো. জাকির হোসেন।

রায়ে যৌতুক ও নারী নির্যাতন মামলা থেকে ৫৪ জনকে অব্যাহতি দিয়ে স্বাভাবিকভাবে সংসার করার সুযোগ দেন আদালত। মামলার হয়রানি ও সংসার এবং দম্পতিদের সন্তানদের ভবিষ্যতের কথা চিন্তা করে এই পদক্ষেপ নেয়া হয় বলে জানান আদালত।

আদালত সূত্রে জানা গেছে, প্রথমে তাদের স্বামীদের ভাল হওয়ার জন্য সুযোগ দেওয়া হয়, পরে দুই পক্ষের মধ্যে আপস মীমাংসা করে সোমবার দুপুরে ফুল ও চকলেট দিয়ে স্বামী-স্ত্রীদের এক সাথে সংসার করার নির্দেশনা প্রদান করেন আদালত।

অন্যদিকে আরও ১১টি পরিবার একিভূত করতে সক্ষম না হওয়ায় ও নির্যাতিত স্ত্রী ও তাদের সাক্ষীরা স্বামীর বিরুদ্ধে সাক্ষ্য দেওয়া এবং তা প্রমানিত হওয়ায় ১১ জনকে দেড় বছর করে কারাদণ্ড দেন আদালত। দণ্ডপ্রাপ্ত আসামিরা হলেন, নূরুল ইসলাম, মো.শামীম, নজরুল ইসলাম, শাহেদ চৌধুরী, রকিবুল ইসলাম, ইমরান আহমদ, আল-আমিন, মো.সোহেল মিয়া, আল-আমিন, মইন উদ্দিন ও রিপন মিয়া।

স্বামীর বিরুদ্ধে ২০১৯ সালে নির্যাতন মামলা করেন দোয়ারাবাজার উপজেলার মামুনপুর গ্রামের মিনারা বেগম। তবে স্বামী তার ভুল বুঝতে পারায় ও আদালত পুনরায় সুযোগ দেওয়া তিনি খুশি। তিনি বলেন, 'আমি রায়ে খুশি, আদালত আমরার ভবিষ্যতের চিন্তা করিয়া আমরা দুইজনরে এক করিয়া দিসোইন আমরা খুশি।'

তার স্বামী সমুজ আলী বলেন, 'আদালত আমারে সুযোগ দিসোইন সংসার করার লাগি আমরারে ফুল দিসোইন চকলেট দিসোইন আমরা আদালতের কথা মানিয়া চলমু সুখে শান্তিতে সংসার করুম।'

নারী ও শিশু নির্যাতন দমন ট্রাইব্যুনালের পিপি নান্টু রায় বলেন, 'এটি একটি যুগান্তকারী রায়। এর আগেও ৪৭ টি মামলার একইভাবে সুরাহা দেন আদালত। এই রকম রায়ে আদালতে মামলা জট কমবে এবং মানুষ আদালতে ঘন ঘন হাজিরা দেয়া থেকে রক্ষা পাবে। বিষয়টি বিচার প্রার্থী ও আইনজীবীদের জন্য ভাল দিক।

Mujib Borsho

সর্বশেষ সংবাদ

লিড