বৃহস্পতিবার, ৩০ বৈশাখ ১৪২৮
১৩ মে ২০২১ ঢাকা, বাংলাদেশ
যুক্ত থাকুন

আর্কাইভ
সর্বশেষ

সাতক্ষীরায় সিরিজ বোমা হামলায় ১৪ আসামির সাজা

উইমেনআই২৪ ডেস্ক: ২০০৫ সালের ১৭ আগস্ট সাতক্ষীরা শহরের পাঁচ স্থানে সিরিজ বোমা হামলার মামলায় রায় ঘোষণা করা হয়েছে। রায়ে আট আসামির ১৩ বছর, ছয়জনকে বিভিন্ন মেয়াদে সাজা দেয়া হয়েছে। এসময় একজনকে খালাস দিয়েছেন আদালত।

বুধবার দুপুরে সাতক্ষীরার অতিরিক্ত জেলা ও দায়রা জজ প্রথম আদালতের বিচারক মো. শরিফুল ইসলাম এ রায় ঘোষণা করেন। দীর্ঘ সাড়ে ১৫ বছর পর প্রতীক্ষিত এ মামলার রায় ঘোষণা করা হল।

রাষ্ট্রপক্ষে এই মামলা পরিচালনা করেন জজ আদালতের পিপি অ্যাড. আব্দুল লতিফ। তাকে সহায়তা করেন অতিরিক্ত পিপি
অ্যাড. আব্দুস সামাদ।

এসময় তারা বলেন, সাক্ষীদের সাক্ষ্যপ্রমাণ এবং আলামত জব্দের মধ্য দিয়ে প্রমাণিত হয়েছে যে এ মামলার সবাই দোষী।

রায়ে তারা সন্তোষ প্রকাশ করে আরও বলেন, এই বিচারের মধ্য দিয়ে ন্যায় বিচার প্রতিষ্ঠিত হয়েছে। এই রায়ের কারণে ভবিষ্যতে এ ধরনের কোনো অপরাধের সঙ্গে কেউ জড়িত হবেন না বলে প্রত্যাশা করেন রাষ্ট্রপক্ষের আইনজীবীরা।

মামলায় আসামিপক্ষে ছিলেন অ্যাড. জিএম আবুবকর সিদ্দীক। তিনি আইনের বিভিন্ন ব্যাখ্যা দিয়ে বলেন, আসামীদের বিরুদ্ধে ৩, ৪,৬ ধারা প্রযোজ্য নয়।  আমরা ন্যায় বিচার পাইনি।

মামলায় বাদী সহ ১৪ জনের সাক্ষ্য গ্রহণ করা হয়। এর মধ্যে পাঁচটি মামলার ১৬ আসামির সবাইকে খালাস এবং একটি মামলায় ২৫ আসামির মধ্যে একজনকে খালাস দেওয়া হয়।

উল্লেখ্য যে ২০০৫ সালের ১৭ আগস্ট সাতক্ষীরা শহরের শহিদ রাজ্জাক পার্ক, কালেকটরেট চত্বর, নারী ও শিশু নির্যাতন দমন আদালত চত্বর, হাসপাতাল মোড় ও বাস টার্মিনালসহ পাঁচটি পয়েন্টে একযোগে বোমা বিস্ফোরণ এবং জামায়াতুল মুজাহিদিন জেএমবির লিফলেট ছড়ানো হয়।

সকালে এ ঘটনার পর বিকালে নারী ও শিশু নির্যাতন দমন আদালত চত্বরে বোমাহামলাকারী শহরতলির বাঁকাল গ্রামের নাসিরউদ্দিন দফাদার প্রত্যক্ষদর্শীর দেখিয়ে দেওয়া মতে গ্রেফতার হন। তার স্বীকারোক্তি অনুযায়ী  ভারতীয় নাগরিক গিয়াসউদ্দিনসহ আরও অনেক আসামি একে একে গ্রেফতার হন।

পুলিশ শহরের রসুলপুরে জেএমবির ঘাঁটিতে তল্লাশি চালিয়ে বিপুল পরিমাণ বোমার সরঞ্জাম জব্দ করে। গ্রেফতার হওয়া ১৩ আসামিকে ঢাকায় জেআইসিতে (জয়েন্ট ইন্টারোগেশন সেল)  জিজ্ঞাসাবাদের জন্য পাঠানো হয়। এ সংক্রান্ত ছয়টি মামলার প্রতিটিতে সিআইডি পুলিশ ১৯ আসামির বিরুদ্ধে চার্জশীট দেয় ২০০৬ সালের ১৩ মার্চ।

এ মামলায় আসামিদের মধ্যে রয়েছেন মনিরুজ্জান মুন্না, আনিসুর রহমান খোকন, মনোয়ার হোসেন উজ্জ্বল, মো. গিয়াসউদ্দিন, বিল্লাল হোসেন, রিয়াজুল ইসলাম রিয়াজ, মসিউজ্জামান ওরফে মুকুল ডাক্তার, শামিম হোসেন গালিব ওরফে সাইফুল্লাহ, আবদুল আহাদ, আশরাফ মাস্টার, আলমগীর হোসেন ওরফে আশা, মামুনুর রশীদ, ওবায়দুল ইসলাম, আসাদুল ইসলাম হাজারি, মাহবুবুর রহমান লিটন, মো. আসাদুজ্জান, মমতাজউদ্দিন, নুর আলি মেম্বর, ফখরুদ্দিন গাজি, আবুল খায়ের ও নাইমুদ্দিন। এর মধ্যে আবুল খায়েরকে বেকসুর খালাস দেওয়া হয়েছে।

পলাতক রয়েছেন কয়েক আসামি। এর আগে ২০১৮ সালের ২৬ ডিসেম্বর কারাগারে আটক অবস্থায় মারা যান আসামি নাসিরুদ্দিন দফাদার।
 

Mujib Borsho

সর্বশেষ

শীর্ষ সংবাদ:
কানাডায় বাংলাদেশি প্রবাসীদের ঈদ কাটছে যেভাবে         যশোরে কোয়ারেন্টাইনে ভারতফেরত নারীর মৃত্যু         উমা সেনগুপ্তের চিরবিদায়ে কানাডা প্রবাসীদের শোক         দেশে টিকা গ্রহণকারীদের শরীরে অ্যান্টিবডি তৈরি হচ্ছে         বায়তুল মোকাররমে ঈদের প্রথম জামাত সকালে         নিউইয়র্কে পুলিশের সার্জেন্ট হলেন বাংলাদেশি নারী         রামপুরায় বহুতল ভবনে অগ্নিকাণ্ড         পথশিশুদের মাঝে ‘দশমিক’র পোশাক বিতরণ         জাতির উদ্দেশে প্রধানমন্ত্রীর ভাষণ সন্ধ্যায়         বৈজ্ঞানিক পদ্ধতি মেনে বাংলাদেশেও ঈদ পালনের আহ্বান         দেশে চাঁদ দেখা যায়নি         ফেরিতে পদদলিত হয়ে পাঁচজনের প্রাণহানি         মিতু হত্যায় তিন লাখ টাকায় চুক্তি করেন বাবুল         বাবুল আক্তার ৫ দিনের রিমান্ডে         ফিলিস্তিনের প্রেসিডেন্টকে শেখ হাসিনার চিঠি         ‘চীনা ভ্যাকসিনের কোনো পার্শ্বপ্রতিক্রিয়া নেই’         মামলার বাদীই হয়ে গেলেন মূল আসামি         মামলার বাদীই হয়ে যাবেন মূল আসামি!         শিমুলিয়ায় জনস্রোত         চীনের উপহারের ভ্যাকসিন এখন ঢাকায়         ঢাকা-টাঙ্গাইল মহাসড়কে ৪০ কিলোমিটার যানজট