শুক্রবার, ১৩ ফাল্গুন ১৪২৭
২৬ ফেব্রুয়ারী ২০২১ ঢাকা, বাংলাদেশ
যুক্ত থাকুন

আর্কাইভ
সর্বশেষ

স্ট্রোকের দায়ী ‘জিন’ আবিষ্কার করলেন বিজ্ঞানীরা

উইমেনআই২৪ ডেস্ক: স্ট্রোক ও স্বল্প সেরিব্রাল সমস্যার কারণ হতে পারে এমন জিন খুঁজে পেয়েছেন বলে সম্প্রতি দাবি করেছেন কিছু গবেষক। সুইডেনের লুন্ড ইউনিভার্সিটির অ্যান্ড্রিয়া ইলিনিকাসহ অন্যান্য বিজ্ঞানীর মতে, নতুন জিনের রূপ MAP3K6। এই জিন গুরুতর এই রোগের সঙ্গে সম্পর্কিত হতে পারে বলে মনে করছেন তাঁরা।

MAP3K6 হল একটি জিন যা প্রোটিনের কার্যকারিতাকে প্রভাবিত করে। এটি মস্তিষ্কের রক্তনালীগুলিকে ক্ষতির ক্ষেত্রে সঠিকভাবে প্রতিক্রিয়া জানাতে সহায়তা করে। যেমন মস্তিষ্কে অক্সিজেনের সরবরাহ যদি কম হয় তার পিছনেও এই জিন দায়ী থাকে। 

ইলিনিকা বলেন, ‘আমরা যে রোগীদের নিয়ে সমীক্ষা করেছি তারা একই পরিবার থেকে এসেছে। তাদের বেশিরভাগের ছোটখাট সেরিব্রাল রোগ আগে ধরা পড়েছিল এবং কেউ কেউ স্ট্রোকের শিকার হয়েছিল। টিস্যু পরীক্ষা এবং জেনেটিক সিকোয়েন্সিং পদ্ধতিগুলি ব্যবহার করার পরে, আমরা দেখতে পেয়েছি যে তারা একটি নতুন জিন বৈকল্পিকের বাহক। এটির সঙ্গে তাদের রোগের সম্পর্ক থাকতে পারে।’

স্ট্রোক হয় রক্ত ​​জমাট বাঁধার কারণে। এটি মস্তিস্কে অক্সিজেনের ঘাটতি বা মস্তিষ্কে রক্তক্ষরণের দিকে নিয়ে যায়। উচ্চ রক্তচাপ, উচ্চ কোলেস্টেরলের মাত্রা, ডায়াবেটিস, অ্যাট্রিয়াল ফাইব্রিলেশন এবং জীবনযাত্রার কারণ- যেমন ধূমপান, স্ট্রোকের ঝুঁকিপূর্ণ কারণ হিসাবে পরিচিত। তবে, ক্রমবর্ধমান গবেষণা ইঙ্গিত দিচ্ছে যে জিনগত কারণগুলিও এক্ষেত্রে একটি প্রধান ভূমিকা পালন করে।

নিউরোলজি জেনেটিক্স জার্নালে গবেষণাটিত প্রকাশিত হয়। এতে বলা হয়, একটি পরিবারের উপর এ গবেষণা চালানো হয়।তাদের বেশিরভাগই দক্ষিণ সুইডেনে বসবাস করেন। সেখানে ১৫ জনের মধ্যে ৮ জনই সেরিব্রালের সমস্যায় আক্রান্ত হয়েছিল।

এই রোগটি ইস্কেমিক স্ট্রোক (রক্ত জমাট বাঁধার কারণে সেরিব্রাল ইনফার্কেশন) এবং মস্তিষ্কের রক্তক্ষরণের পাশাপাশি হালকা দুর্বলতা, স্নায়ুতন্ত্রের কর্মহীনতা সৃষ্টি করে। যাদের লক্ষণগুলির ইতিমধ্যেই দেখা দিয়েছে তাদের থেকে টিস্যু পরীক্ষা করার সময়, গবেষকরা মস্তিষ্কের রক্তনালীগুলিতে এবং ত্বকের ছোট ছোট শিরাগুলিতে মাইক্রোস্কোপিক পরিবর্তনগুলি দেখতে পেতেন। আধুনিক জিনগত বিশ্লেষণ পদ্ধতিগুলি ব্যবহার করে তাঁরা MP3K6 জিনে একটি নতুন রূপ পেয়েছেন। এটিই এই রোগের সঙ্গে সম্পর্কিত হতে পারে মনে করছেন বিজ্ঞানীরা।

ইলিনিকা বলেছেন, ‘মস্তিষ্কের শিরায় এবং প্রারম্ভিক স্ট্রোকের রোগের সঙ্গে সম্পর্কিত এই জিনগুলি সনাক্ত করে কীভাবে এই ক্ষতিকারক প্রক্রিয়াগুলি প্রতিরোধ করতে পারা যায় তা আরও ভালভাবে বুঝতে পারব। ভবিষ্যতে আরও সমীক্ষা এই রোগ সম্পর্কে আমাদের আরও কিছু জানাতে পারে। সেগুলি নতুন চিকিৎসার দিকে পরিচালিত করতে পারে।’

Mujib Borsho

সর্বশেষ সংবাদ

লিড