বৃহস্পতিবার, ২০ ফাল্গুন ১৪২৭
০৪ মার্চ ২০২১ ঢাকা, বাংলাদেশ
যুক্ত থাকুন

আর্কাইভ
সর্বশেষ

‘দেশে নারীরা কোথাও নিরাপদ নয়’

উইমেনআই২৪ ডেস্ক: ‘আমাদের দেশে একবিংশ শতাব্দীতে এসেও নারীরা ঘরে বাইরে কোথাও নিরাপদ নয়। সাম্প্রতিক সময়ে এই সহিংসতার হার অতীতের সকল রেকর্ডকে ছাড়িয়ে গেছে। নারী-পুরুষের ভোটের মাধ্যমে সরকার নির্বাচিত হয়। কিন্তু নারীদের নিরাপত্তার বিষয়ে নির্বাচিত জনপ্রতিনিধিরা এখনো তৎপর নয়। এ বিষয়ে তাদের কোনো পরিকল্পনা বা পদক্ষেপ নিতে দেখা যায় না। জাতীয় উন্নয়ন পরিকল্পনায় অবকাঠামোগত উন্নয়ন নিয়ে আলোচনা হয়, কিন্তু নারী বান্ধব বা নারীর কল্যাণমূলক কোনো ইস্যু গুরুত্ব পায় না।’

বৃহস্পতিবার সকাল ১১টায় সোবহানবাগ মসজিদের পাশে ধানমন্ডিতে বাংলাদেশ মহিলা পরিষদে কেন্দ্রীয় কমিটির উদ্যোগে নারী নির্যাতন ও ধর্ষণের প্রতিবাদে এক সমাবেশে বক্তারা এসব কথা বলেন। এ সময়  সমাবেশ থেকে অব্যাহত নারী ও শিশু নির্যাতন ও ধর্ষণের ঘটনা প্রতিরোধ ও প্রতিকারের দাবি করা হয়। এতে সভাপতিত্ব করেন কেন্দ্রীয় কমিটির ভারপ্রাপ্ত সভাপতি ডা. ফওজিয়া মোসলেম।

সমাবেশে বক্তারা এ  জাতীয় পরিকল্পনা নীতিতে, সংসদ অধিবেশনে নারীর ইস্যুকেও গুরুত্ব দিয়ে উপস্থাপন করার দাবি জানান। পাশাপাশি সহিংসতা বন্ধে জননিরাপত্তমূলক ভ’মিকা গ্রহণের জন্য, নারীর প্রতি সংবেদনশীল দৃষ্টিভঙ্গি নিয়ে বিচার কার্য পরিচালনা করার জন্য, দ্রুত বিচার করে ধর্ষকের শাস্তি নিশ্চিত করা, ধর্ষণের ঘটনায় আপোষ না করা ,ধর্ষণের শিকার নারীকে ধর্ষকের সাথে বিয়ে না দেয়া, ধর্ষণের শিকার নারী ও কন্যার নিরাপত্তা নিশ্চিত করা এবং সহিংসতার ঘটনায় ভিকটিমকে দোষারোপ না করার জন্য দাবি জানান।

সভাপতির বক্তব্যে সংগঠনের ভারপ্রাপ্ত সভাপতি ডা. ফওজিয়া মোসলেম বলেন স্বাধীনতার ৫০ বছর পর এসেও নারীর জীবন নিরাপদ নয়। ২০২০ সালের মত ২০২১ সালের শুরুতেও নারীর প্রতি অব্যাহত সহিংসতা, নির্যাতন ও ধর্ষণ বন্ধের দাবিতে মহিলা পরিষদ ক্রমাগত আন্দোলন চালিয়ে যাচ্ছে। নারী প্রতি সহিংসতার এই ভয়াবহ মাত্রাকে দূর করতে হলে প্রশাসনকে আরো কঠোর হতে হবে, রাষ্ট্রের জনপ্রতিনিধিদের জবাবদিহিতা নিশ্চিত করতে নারী আন্দোলন মূল চালিকা শক্তি হিসেবে কাজ করবে। তিনি আরো বলেন নারীর প্রতি সহিংসতার ঘটনায় সুষ্ঠু দ্রুত বিচার এখনো হয় না, নির্যাতনের শিকার নারীকে আপোষ করতে বলা হয়, বিচার প্রক্রিয়া প্রভাবশালীর ক্ষমতার কারণে প্রভাবিত হয়। তিনি এসব পরিস্থিতি প্রতিহত করে ঘটনার বিচার দ্রুত বিচার ট্রাইবুনালে করার জন্য, নারীর সকল সাংবিধানিক অধিকার প্রদানের জন্য দাবি জানান।

সভায় বক্তব্য রাখেন সংগঠনের কেন্দ্রীয় কমিটির সহ সভাপতি রেখা চৌধুরী, সাধারণ সম্পাদক মালেকা বানু, যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক সীমা মোসলেম, সহ-সাধারণ সম্পাদক অ্যাড. মাসুদা রেহানা বেগম, ঢাকা মহানগর কমিটির সাধারণ সম্পাদক রেহানা ইউনুস, কেন্দ্রীয় কমিটির লিগ্যাল এ্যডভোকেসি ও লবি পরিচালক অ্যাড. মাকছুদা আক্তার । এছাড়াও সমাবেশে সংহতি প্রকাশ করে তরুণ প্রজন্মের প্রতিনিধি নেহা জামান।

সমাবেশ শেষে কেন্দ্রীয় কমিটির সাধারণ সম্পাদক মালেকা বানু, যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক সীমা মোসলেম, সহ-সাধারণ সম্পাদক অ্যাড. মাসুদা রেহানা বেগম এবং আন্তর্জাতিক সম্পাদক রেখা সাহা সংসদ ভবনে গিয়ে মাননীয় স্পীকারের প্রতিনিধির নিকট স্মারকলিপি প্রদান করেন।

সমাবেশ অনুষ্ঠান সঞ্চালনা করেন এ্যাডভোকেসি ও লবি পরিচালক জনা গোস্বামী। সমাবেশ অনুষ্ঠানে সংগঠনের কেন্দ্রীয় কমিটির নেতৃবৃন্দ, ঢাকা মহানগর কমিটির নেতৃবৃন্দ, পাড়া কমিটির সদস্য, সাংবাদিক এবং কর্মকর্তারা উপস্থিত ছিলেন।