বৃহস্পতিবার, ১৩ ফাল্গুন ১৪২৭
২৫ ফেব্রুয়ারী ২০২১ ঢাকা, বাংলাদেশ
যুক্ত থাকুন

আর্কাইভ
সর্বশেষ

নারী ক্ষমতায়নে নতুন ইতিহাস রচনাকারী ফরিদা ইয়াসমিন

আবু সালেহ মো. ইউসুফ: ক্ষমতায়নের ক্ষেত্রে নারীর পদচারণা দেশের সর্বত্র এখন লক্ষ্য করা যাচ্ছে। দেশের গণ্ডি পেরিয়ে বৈশ্বিক ক্ষমতায়নেও আমাদের দেশের নারীদের অগ্রগতি চোখে পড়ার মতো। আমাদের দেশে আজ প্রধানমন্ত্রী থেকে শুরু করে মন্ত্রী, উপমন্ত্রী প্রশাসনের অনেক উচু মর্যাদায় নারীদের আসন বিরাজমান। সমাজ-সংসারে বাড়ছে নারীদের আত্মমর্যাদা।

লিঙ্গ সমতার ক্ষেত্রে পশ্চিমা ও আমেরিকার দেশগুলোর অগ্রগতি যেখানে চোখের পড়ার মত নয় সেখানে আমাদের মতো উন্নয়নশীল দেশে ক্ষমতায়নের ক্ষেত্রে নারীদের অগ্রগতির পথ মোটেও মসৃন নয় এটাই স্বাভাবিক। এখানে একজন নারীকে তার ন্যায্য দাবি আদায়ে অনেক ধৈর্য সংগ্রাম করে এগিয়ে যেতে হয়। একজন নারীর ক্ষেত্রে সব বাধা পেরিয়ে পুরুষের বিপক্ষে জয় ছিনিয়ে আনা কোমলমতি হাতের কাজ নয়। আর পুরুষের সঙ্গে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করে বিজয়ী হতে অনেক মেধা-মনন-প্রজ্ঞার সমন্বয়ে দৃঢ়চেতা মনোবল নিয়ে পথ চলতে হয় এগিয়ে যেতে হয়। তবেই আসে নারীর গলে বিজয়ের মালা।

তেমনই একজন নারী উইমেনআই২৪ ডটকমের প্রকাশক ও সম্পাদক ফরিদা ইয়াসমিন। যিনি জাতীয় প্রেস ক্লাবের ৬৬ বছরে প্রথম কোনো নারী হিসেবে সভাপতি নির্বাচিত হয়ে বাংলাদেশের ইতিহাসের পাতায় নিজের জায়গা করে নিয়েছেন। এর আগেও বাংলাদেশের প্রথম কোনো নারী হিসেবে দুইবার জাতীয় প্রেসক্লাবের সাধারণ সম্পাদক পদে নির্বাচিত হয়ে ইতিহাস গড়েন। নারীর অর্থনৈতিক ক্ষমতায়নের ক্ষেত্রেও তিনি ইতিহাস রচনা করে দেশের আর্থসামাজিক উন্নয়নে ভূমিকা রাখবেন এমনটাই মনে করেন তরুণ বিশ্লেষকরা।

ফরিদা ইয়াসমিন নারীর ক্ষমতায়ন নিয়ে গণমাধ্যমে কাজ করার অবদান হিসেবে ২০১৭ সালের ৭ মে যুক্তরাষ্ট্রের হাউস অব রিপ্রেজেন্টটেটিভ থেকে কংগ্রেসনাল স্পেশাল সার্টিফিকেট লাভ করেন।

দৈনিক ইত্তেফাক পত্রিকার জ্যেষ্ঠ সাংবাদিক ফরিদা ইয়াসমিন বর্তমানে বাংলাদেশ উইমেন জার্নালিস্ট নেটওয়ার্ক এবং বাংলাদেশ উইমেন জার্নালিস্ট ফোরামের উপদেষ্টা। দায়িত্ব পালন করছেন বাংলাদেশ জার্নালিস্ট ফোরাম অ্যাগেনিস্ট ট্রাফিকিংয়ের সভাপতি হিসেবে। ২০১৬ সালে তিনি ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় গণযোগাযোগ ও সাংবাদিকতা অ্যালামনাই অ্যাসোসিয়েশনের সহ-সভাপতি পদে নির্বাচিত হন।

ফরিদা ইয়াসমিনের জন্ম নরসিংদী জেলার রায়পুরা উপজেলায়। তার বাবার নাম সাখাওয়াৎ হোসেন ভুঁইয়া এবং মায়ের নাম জাহানারা হোসেন। ৫ বোন এবং ৪ ভাইয়ের মধ্যে তিনি সবার বড়। ১৯৯০ সালে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের গণযোগাযোগ ও সাংবাদিক বিভাগ থেকে স্নাতকোত্তর ডিগ্রি লাভ করেন। পাশাপাশি তিনি যুক্তরাষ্ট্রের ওকলাহোমা ইউনিভার্সিটি থেকে সাংবাদিকতায় উচ্চতর প্রশিক্ষণ নিয়েছেন।পরবর্তীতে ১৯৯০ সালে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের গণযোগাযোগ ও সাংবাদিক বিভাগ থেকে স্নাতকোত্তর ডিগ্রি লাভ করেন। পাশাপাশি তিনি যুক্তরাষ্ট্রের ওকলাহোমা ইউনিভার্সিটি থেকে সাংবাদিকতায় উচ্চতর প্রশিক্ষণ নিয়েছেন।

 

Mujib Borsho

সর্বশেষ সংবাদ

লিড