ঢাকা, বাংলাদেশ

রোববার, ১২ ফাল্গুন ১৪৩০, ২৫ ফেব্রুয়ারি ২০২৪

English

বৃত্তের বাইরে

৩ জেলায় ২ নারী ধর্ষণ এবং শিশু ধর্ষণ চেষ্টা, জড়িতদের শাস্তি দাবি

উইমেনআই প্রতিবেদক

প্রকাশিত: ১৭:২১, ৪ ডিসেম্বর ২০২৩; আপডেট: ১৭:৩৩, ৪ ডিসেম্বর ২০২৩

৩ জেলায় ২ নারী ধর্ষণ এবং শিশু ধর্ষণ চেষ্টা, জড়িতদের শাস্তি দাবি

ছবি: বাংলাদেশ মহিলা পরিষদের লোগো...

দেশের রংপুর, মানিকগঞ্জ ও সুনামগঞ্জে মাদরাসাছাত্রীসহ তিন নারীকে পৃথক দলবদ্ধ ধর্ষণ ও ধর্ষণের চেষ্টার ঘটনায় গভীর উদ্বেগ ও ক্ষোভ প্রকাশ করেছে নারীবাদি সংগঠন মহিলা পরিষদ। একইসঙ্গে ঘটনায় জড়িতদের দ্রুত গ্রেফতারসহ সুষ্ঠু ও নিরপেক্ষ তদন্ত সাপেক্ষে দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি নিশ্চিতকরণের দাবিও জানিয়েছে সংগঠনটি।

৪ ডিসেম্বর (সোমবার) গণমাধ্যমে পাঠানো সংগঠনটির সাধারণ সম্পাদক মালেকা বানু স্বাক্ষরিত বিবৃতিতে এ দাবি জানানো হয়।

৪ ডিসেম্বরের বিভিন্ন জাতীয় দৈনিকের প্রকাশিত খবরের বরাতে বলা হয়, রংপুর জেলার হাজিরহাট মুচিরমোড় বটতলা এলাকায় স্বামীকে বেঁধে রেখে স্ত্রীকে দলবদ্ধ ধর্ষণের ঘটনা ঘটেছে। জানা গেছে, গত ২ ডিসেম্বর শনিবার নগরীর হাজিরহাট থানাধীন এলাকায় ছাগল চুরির অভিযোগে নির্যাতনের শিকার স্ত্রীকে তার স্বামীসহ তুলে নিয়ে যায় ওই এলাকার কয়েকজন যুবক। পরে গভীর রাতে একটি টিনের চালায় স্বামীর হাত-পা বেঁধে রেখে অভিযুক্ত রানা ও হাফিজুল, আলমগীর হোসেন, সামসুল ইসলাম ও বুলু মিলে ওই নারীকে দলবদ্ধভাবে ধর্ষণ করে। এ ঘটনায় ওই নারী অসুস্থ হয়ে পড়লে তাকে রংপুর মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের ওয়ান স্টপ ক্রাইসিস সেন্টারে ভর্তি করা হয়। 

মানিকগঞ্জ জেলার সাটুরিয়ার ডিসি পার্কে এক নারী শ্রমিককে বিয়ের প্রলোভন দেখিয়ে দলবদ্ধ ধর্ষণের ঘটনা ঘটেছে। জানা গেছে, উত্তর কাউন্নারা গ্রামের রিয়নের সাথে ওই নারী শ্রমিকের পরিচয় হয়। এক পর্যায়ে তাদের মধ্যে দীর্ঘদিন ধরে প্রেমের সম্পর্ক গড়ে ওঠে। গত ২ ডিসেম্বর শনিবার অভিযুক্ত রিয়ন শিকদার ওই নারী শ্রমিককে দেখা করার জন্য সাটুরিয়ার ডিসি পার্কে আসতে বলে। তার কথামত কর্মস্থল থেকে ঐ নারী রাতে আসলে তাকে ডিসি পার্ক থেকে তিনগজ দূরে ধামরাইয়ের আমতা ইউনিয়নের নেওয়াজের পরিত্যক্ত ভিটায় নিয়ে এসে অভিযুক্ত রিয়ন হোসেন ও তার তিন বন্ধু নাজমুল হোসেন রাজ, আসিফ হোসেন ও পারভেজ হোসেন মিলে ওই নারী শ্রমিককে দলবদ্ধভাবে ধর্ষণ করে। 

সুনামগঞ্জ জেলার দোয়ারাবাজার উপজেলার বাংলাবাজার ইউনিয়নের দক্ষিণ কলাউড়া তাহফিজুল কোরআন হাফিজিয়া মাদ্রাসায় মাদ্রাসা শিক্ষক কাউছার কর্তৃক শিশু ছাত্রীকে ধর্ষণের চেষ্টা করার ঘটনা ঘটেছে। জানা যায়, গত ২ ডিসেম্বর শনিবার বিকালে মাদ্রাসার শিক্ষক কাউছার ওই ছাত্রীকে কৌশলে ডেকে নিয়ে তাকে ধর্ষণের চেষ্টা করে।

বিবৃতিতে বলা হয়, সম্প্রতি দেশের বিভিন্ন অঞ্চলে গৃহবধূ, নারী ও কন্যাশিশুকে ধর্ষণ, দলবদ্ধ ধর্ষণ ও ধর্ষণের চেষ্টার ঘটনা ঘটেই চলেছে। এলাকার প্রতিবেশীদের দ্বারা বিভিন্ন কৌশলে, বিয়ের প্রলোভন দেখিয়ে ফুসলিয়ে সংঘটিত এসব ঘটনা ঘটছে। এসব ঘটনা নারী ও কন্যাদের স্বাভাবিক জীবন ব্যাহত করছে এবং তাদের অগ্রগতির পথে প্রতিবন্ধকতা তৈরি করছে।

বিবৃতিতে এ ধরনের ঘটনা পুনরাবৃত্তিরোধে সংশ্লিষ্ট মন্ত্রণালয় ও প্রশাসনের নিকট জোর জানিয়েছে সংগঠনটি। পাশাপাশি নারী ও কন্যার প্রতি সহিংসতা প্রতিরোধে ব্যক্তি, পরিবার ও সমাজকে যুক্ত করে সমন্বিত সামাজিক আন্দোলন গড়ে তোলার আহ্বান জানানো হয়েছে।

ইউ

এমপি নির্বাচিত হলেন সাংবাদিক ফরিদা ইয়াসমিন

বৃষ্টি উপেক্ষা করে প্যারিসে ‘আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবস’ পালন

যশোরের চুড়ামনকাটিতে যুবক খুন

নোয়াখালীতে অস্ত্রসহ ৯ ডাকাত গ্রেফতার

 ভোটের রাতে গৃহবধূকে ধর্ষণ: আসামি গ্রেফতার

বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় এমপি হলেন ৫০ নারী

নারী উদ্যোক্তা তৈরিতে বিশ্বব্যাংকের বিশেষ তহবিল চান প্রধানমন্ত্রী

গোদাগাড়ীতে ১৬ প্রহর ব্যাপী মহানামযজ্ঞ ও লীলা কীর্তন 

মিথ্যা খবর ও গুজব ঠেকাতে নতুন আইন আসছে: আইনমন্ত্রী

নোয়াখালীতে বিনোদন কেন্দ্রের দাবিতে লিফলেট বিতরণ

ভালো অর্থনীতিক অবস্থানে বাংলাদেশ: বিশ্বব্যাংকের এমডি

পিলখানার পেছনে যারা ছিলো তাদের খুঁজে বের করা হবে: ফারুক খান

২ সন্তানকে ‘হত্যার পর মায়ের আত্মহত্যা’

সংরক্ষিত নারী আসনে প্রার্থিতা প্রত্যাহারের শেষ দিন

‘অনিয়মে রোগীর মৃত্যু হলে দায়ীদের বিরুদ্ধে জিরো টলারেন্স’